রঙ্গারচর ইউনিয়নে পিলার স্থাপনের পরও বিদ্যুৎ নেই ৯ গ্রামে

আকরাম উদ্দিন
সদর উপজেলার রঙ্গারচর ইউনিয়নের ৯ গ্রামে পিলার স্থাপন ও মেইন লাইনের তার টানানোর পরও বিদ্যুৎ পাচ্ছেন না শত শত গ্রাহক। বিদ্যুৎ পাওয়ার আশায় প্রত্যেক গ্রাহক ঘরে ওয়ারিং করেছেন প্রায় ২ বছর আগে। কিন্তু বিদ্যুৎ না পাওয়ায় দুশ্চিন্তায় দিন কাটাচ্ছেন এসব গ্রাহকেরা। একাধিক গ্রাহকের অভিযোগ পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন বিদ্যুৎ দেওয়ার আশ^াস দিয়ে ঘরে ওয়ারিং করেছেন। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে নানা টালবাহানা করে বিদ্যুতের সংযোগ দেওয়া হচ্ছে না।
এ ব্যাপারে পল্লীবিদ্যুতের জেনারেল ম্যানেজার অখিল কুমার সাহা জানান, রঙ্গারচর ইউনিয়ন এলাকায় কয়েকটি গ্রামে বিদ্যুত সংযোগের জন্য পিলার স্থাপন করা হয়েছে এবং মেইন লাইনের তারও টানানো হয়েছে। ইতোমধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগের অন্যান্য কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে বিভিন্ন গ্রামের বাড়ি-ঘরে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার কাজ শুরু হবে।
সরেজমিনে গেলে স্থানীয় একাধিক বাসিন্দা জানান, ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামের প্রায় ৮শত পরিবার, বৃন্দাবননগর গ্রামের প্রায় ৬শত পরিবার, শিংপুর ও নৈগাং গ্রামের প্রায় ৭শত পরিবার, শাহপুর ও হাসাউড়া গ্রামের প্রায় ৮শত রংপুর গ্রামের ১২০ পরিবারসহ কান্দিগাঁও, চিনাউড়া গ্রামের অসংখ্য পরিবার ঘরে ওয়ারিং করে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য অপেক্ষা করে বসে আছেন। দীর্ঘ দুই বছরেও বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ এ বিষয়টি কার্যত: আমলে নিচ্ছেন না বলে অভিযোগ একাধিক গ্রাহকের।
রঙ্গারচর ইউনিয়নের চিনাউড়া গ্রামের বাসিন্দা জাকির হোসেন বলেন,‘আমি প্রায় ৬ মাস আগে ঘরের ওয়ারিংয়ের কাজ শেষ করেছি। ওয়ারিং করতে খরচ হয়েছে ১২ হাজার টাকা। কিন্তু মিটারের টাকাও অফিসে নিচ্ছে না। তাই বিদ্যুৎও পাচ্ছি না। আমরা বিদ্যুৎ না পাওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে দুশ্চিন্তায় আছি।’
রংপুর গ্রামের শামীম আহমদ বলেন,‘আমি বিদ্যুৎ পাওয়ার আশায় ঘরে ওয়ারিং করেছি প্রায় ৭ মাস আগে। এতে খরচ হয়েছে ৮ হাজার টাকা। কিন্তু এখনও বিদ্যুৎ পাইনি। এটা অফিসের অবহেলা।’
একই ইউনিয়নের কান্দিগাঁও গ্রামের রফিক আহমদ ও বিদ্যুৎ পাওয়ার ্আশায় সাড়ে ৭ হাজার টাকা খরচ করে ঘরে ওয়ারিং করেছেন। কিন্তু বিদ্যুতের সংযোগ পাচ্ছেন না বলে জানান তিনি।
রঙ্গারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হাই বলেন,‘আমার ইউনিয়নের মানুষ ঘরে ওয়ারিং করেও বিদ্যুৎ পাচ্ছে না। মেইন লাইনের পিলার স্থাপন করা হয়েছে প্রায় দুই বছর আগে। তারও টানানো হয়েছে পিলারে। কিন্তু বিদ্যুৎ সংযোগ নেই।’