লক্ষাধিক মানুষের ভোগান্তি

আকরাম উদ্দিন
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের দুলভারচর পয়েন্ট হতে ফতেপুর রক্তি নদীর ফেরিঘাট পর্যন্ত সাড়ে ৫ কিলোমিটার সড়কের বেহাল অবস্থা। প্রতিদিন এই সড়ক দিয়ে বিভিন্ন এলাকার লক্ষাধিক মানুষ জেলা শহরে আসা-যাওয়া করেন। সড়কটি বিশ্বম্ভরপুর ও তাহিরপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মানুষ বাইপাস যাতায়াত সড়ক হিসাবে ব্যবহার করে আসছেন। এতে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন চলাচলকারীরা। এই দীর্ঘ সড়ক সংস্কারের দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের।
স্থানীয়রা জানান, দুলভারচর পয়েন্ট হতে ফতেপুর রক্তি নদীর ফেরিঘাট পর্যন্ত সড়কে মারাত্মক ভোগান্তির শিকার হয়ে আসছেন। ফতেপুর ইউনিয়নের সংগ্রামপুর, জিরাগ তাহিরপুর, সালমারা, হরিপুর, কচুখালী, কলাইয়া, ফতেপুর ও নিয়ামতপুর গ্রামের মানুষ, আনোয়ারপুর ও তাহিরপুর উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লক্ষাধিক মানুষ এই সড়ক দিয়ে চলাচল করেন প্রতিদিন।
ফতেহপুর গ্রামের মন্টু দাস বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে নিয়ামতপুর থেকে ফতেপুর পর্যন্ত সড়কের বেহাল অবস্থা। কিন্তু সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় বিভিন্ন স্থানে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এই সড়কের সংস্কার জরুরি প্রয়োজন।’
কচুখালী গ্রামের রাজিব দাস বলেন, ‘নিয়ামতপুর-ফতেপুর সড়কের বিভিন্ন স্থানে গর্ত থাকায় যানবাহনে বয়স্ক মানুষ ও রোগীরা চলাচল করলে মারাত্মক কষ্ট হয়।’
ফতেহপুর ইউপি চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজন বলেন,‘দীর্ঘ ৫ বছর যাবত নিয়ামতপুর-ফতেপুর সড়কের বেহাল অবস্থা। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন লক্ষাধিক মানুষ জেলা শহরে আসা-যাওয়া করেন। সড়কের বিভিন্ন স্থানে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। যানবাহন চলাচলে মারাত্মক ভোগান্তি হয়। এই সড়কের সংস্কার জরুরি প্রয়োজন।’
সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. নজরুল ইসলাম বলেন,‘আনোয়ারপুর থেকে নিয়ামতপুর পর্যন্ত সাড়ে ৮ কিলোমিটার সড়কের একটি প্রকল্প তৈরি করে পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন হয়ে আসলে সড়কের সংস্কার কাজ শুরু হবে।’