লন্ডনের টাওয়ার হ্যামলেটসের স্পিকারকে সংবর্ধনা প্রদান

স্টাফ রিপোর্টার
লন্ডন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের স্পিকার মোহাম্মদ আহবাব হোসাইনসহ তাঁর সঙ্গে বাংলাদেশ সফরে আসা প্রতিনিধি দলকে সুনামগঞ্জে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখতের উদ্যোগে রোববার দুপুরে পৌর মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠান হয়। এতে শহরের বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
মেয়র নাদের বখতের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে লন্ডন টাওয়ার হ্যামলেটসের স্পিকার মোহাম্মদ আহবাব হোসাইন ছাড়াও বক্তব্য দেন তাঁর সঙ্গে আসা প্রতিনিধি দলের সদস্য সংবর্ধিত ব্যক্তি লন্ডন অ্যাসেমব্লির নির্বাচিত সদস্য উমেশ দেশাই, লন্ডন টি এক্সেঞ্জের সিইও শেখ অলিউর রহমান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও রাজনীতিক আবদুল করিম নাজিম, লন্ডন সিটি কাউন্সিলের কাউন্সিলম্যান মনসুর আলী, বিশিষ্ট ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব মোহাম্মদ সোনাহর আলী ও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক কোচ শহিদুল আলম রতন। পৌরসভার পক্ষ থেকে সংবর্ধিত অতিথিদের সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। অতিথিরা সুনামগঞ্জ পৌরসভায় এসে প্রথমে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
সাংবাদিক ও আইনজীবী খলিল রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ পৌরসভার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইসহাক ভুইয়া, সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ পরিমল কান্তি দে, সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ দীলিপ কুমার মজুমদার, হবিগঞ্জের বৃন্দাবন সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ন্যাথানায়েল এডউইন ফেয়ারক্রস, মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ সৈয়দ মহিবুল ইসলাম, প্রবীন শিক্ষক যোগেশ^র দাশ, সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি মো. চাঁন মিয়া ও মো. নজরুল ইসলাম, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মো. শামছুল আবেদীন, জেলা মহিলা পরিষদের সভাপতি গৌরি ভট্টাচার্য, সুনামগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর চঞ্চল কুমার লৌহ, আবদুল হাসনাত কাওসার ও সামিনা চৌধুরী।
অনুষ্ঠানে লন্ডন টাওয়ার হ্যামলেটসের স্পিকার মোহাম্মদ আহবাব হোসাইন তাঁর বক্তব্যে বলেন, আমি ব্রিটিশ বাংলাদেশি হলেও অন্তরে বাংলাদেশ এবং বঙ্গবন্ধু সব সময় আছেন। আমরা সেখানকার মূল ধারার রাজনীতিসহ সব ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখছি। কিন্তু আমাদের শেকড় বাংলাদেশে, এটি আমরা কখনো ভুলিনা। আমাদের চিন্তা—ভাবনাজুড়ে সব সময় বাংলাদেশ ও দেশের মানুষেরা আছেন। দুই দেশের মানুষের এই বন্ধুত্ব ও ভ্রাতৃত্বের সম্পর্ক অটুট থাকবে। এটিকে আরও জোরদার করতে আমরা কাজ করছি।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শেষে অতিথিরা সুনামগঞ্জ পৌর শহরের কয়েকটি দর্শনীয় স্থান ঘুরে দেখেন।