লোডশেডিং ও লো-ভোল্টেজ ভোগান্তি

ধর্মপাশা প্রতিনিধি
গত শুক্রবার বিকেল ৩টা থেকে শনিবার বেলা ১২টা পর্যন্ত ধর্মপাশা উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল। ফলে নেত্রকোনা পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির অধীনে এ উপজেলার বিশ হাজারেরও বেশি গ্রাহককে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। ধর্মপাশা ছাড়াও নেত্রকোনার বারহাট্টা ও মোহনগঞ্জ উপজেলাতেও এ সময় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল। ফলে বারহাট্টা ও মোহনগঞ্জ উপজেলার পল্লীবিদ্যুতের গ্রাহকদেরকেও নাকাল হতে হয়েছে এ সময়।
সপ্তাহখানেক ধরে ওই উপজেলাগুলোতে প্রতিদিন গড়ে ১৫/২০ বার বিদ্যুৎ আসা যাওয়া করছে। মাত্রাতিরিক্ত লোডশেডিংয়ের পাশাপাশি বিদ্যুৎতের কম ভোল্টেজ গ্রাহকদের বিড়ম্বনায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে। লোডশেডিং ও কম ভোল্টেজের কারণে গ্রাহকের বাসা-বাড়ি, বরফ কল, করাতকল, রাইস মিলসহ অফিস আদালতের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম মারাত্মভাবে বিঘিœত হচ্ছে। বিনষ্ট হচ্ছে ফ্রিজ, টিভি, কম্পিউটার, ফটোস্ট্যাট মেশিনসহ বিভিন্ন দামি দামি জিনিসপত্র। বিদ্যুৎ না থাকলে এসকল উপজেলায় ইন্টারনেট সেবা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়।
জানা যায়, শুক্রবার নেত্রকোনার উলুহাটি নামক এলাকায় বৈদ্যুতিক লাইনে সমস্যা দেখা দেওয়ার কারণে ওইদিন বিকেল থেকে শনিবার বেলা ১২টা পর্যন্ত ধর্মপাশা, বারহাট্টা ও মোহনগঞ্জ উপজেলায় বিদ্যুৎ ছিল না। তবে ওইদিন রাত ১০টার পর মোহনগঞ্জ উপজেলায় ঘন্টা তিনেক সময়ের জন্য বৈদ্যুতিক লাইন সচল হলেও গভীর রাতে তা আবার বন্ধ হয়ে যায়। ধর্মপাশা উপজেলায় রাত আড়াইটা থেকে সাড়ে তিনটা পর্যন্ত ঘন্টাখানেক বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়।
মোহনগঞ্জ থানা রোডের বাসিন্দা মাসুদ রানা বলেন, শুক্রবার বিকেল ৩টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত মোহনগঞ্জে বিদ্যুৎ ছিল না। ১০টার পর বিদ্যুৎ আসলেও গভীর রাতে আবার বিদ্যুৎ চলে যায়।’
ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন স্বপ্ন কম্পিউটারের মালিক বিদ্যুৎ কুমার সিংহ বলেন, ‘এখানে ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎ থাকে না। কম্পিউটার ও ফটোস্ট্যাটের ব্যবসা পুরোটাই বিদ্যুৎ নির্ভর। জেনারেটর চালিয়ে গ্রাহকদের সেবা দিলেও উপযুক্ত মূল্য পাওয়া যায় না। বিদ্যুৎ না থাকলে এখানে ইন্টারনেট সংযোগ পাওয়া কষ্টসাধ্য হয়ে যায়।
ধর্মপাশা সরকারি কলেজ রোডের সৃষ্টি কম্পিউটার এন্ড ট্রেনিং সেন্টারের পরিচালক সুজন চন্দ্র কর বলেন, ‘লোডশেডিংয়ের কারণে আমার প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার শিক্ষা কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ব্যহত হচ্ছে।’
নেত্রকোনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মোহনগঞ্জ আঞ্চলিক শাখার ডিজিএম আখতারুজ্জামান লস্কর বলেন, ‘শুক্রবার বিকেল পৌনে তিনটার দিকে নেত্রকোনার উলুহাটি নামক এলাকায় বজ্রপাতের কারণে বৈদ্যুতিক লাইনে সমস্যা দেখা দেয়। তাই ধর্মপাশা, বারহাট্টা ও মোহনগঞ্জে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল। জাতীয় গ্রীডে সমস্যা থাকার কারণে সপ্তাহখানেক ধরে ইনকামিং ভোল্টেজ কম পাওয়া যাচ্ছে। দ্রুত এ সমস্যার সমাধান হবে।’