শহরের শান্তিবাগে ৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা

স্টাফ রিপোর্টার
শহরের শান্তিবাগ এলাকায় মাছ দেয়ার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় রবিন (৩৫) নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার রবিনকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ।
আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন। বৃহস্পতিবার শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ধর্ষণ বিরোধী প্রতিবাদ সমাবেশে নারী নেতৃবৃন্দসহ বক্তারা এই তথ্য জানান।
ওই শিশুর পরিবারের সদস্যরা জানান, অভিযুক্ত রবিন সোমবার দুপুর আড়াইটায় শিশুটিকে পৌর এলাকার শান্তিবাগের ফিসারীতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে শিশুটিকে উদ্বার করে থানায় নিয়ে আসলে পুলিশ রবিন (৩৫) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে।
শিশুটির নানা জানালেন, রবিন মেয়েটাকে ডেকে নিয়ে যায় শান্তিবাগ ফিসারীতে। সে বলে আমার কাছে কিছু মাছ আছে, তোমাকে দেবো তুমি আমার সাথে আসো। এসময় মেয়েটাকে জোড় করে ধর্ষণ করার চেষ্টা করে সে। কাউকে বললে, মেরে ফেলবে বলেও হুমকি দেয়।
এঘটনা শিশুটি দৌড়ে বাসায় এসে মা- বাবাকে কান্না করে বলে। শিশুটির মা বাবা ওইদিনই রাত ৮ টায় থানায় গিয়ে পুলিশকে জানান। পুলিশ অভিযুক্ত রবিন কে বুধবার গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলার প্রগতিশীল নেতৃবৃন্দ বিষয়টি জানার পর থানায় গিয়ে তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তাকে বিষয়টি সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা মহিলা পরিষদের সভাপতি গৌরী ভট্টাচার্য্য, জেলা উদীচী’র সভাপতি শীলা রায়, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা যুব ইউনিয়নের সভাপতি মো. আবু তাহের মিয়া, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি দুর্যোধন দাস দুর্জয়।
সুনামগঞ্জ সদর থানার ওসি শহিদুর রহমান বলেন, শিশুটির মায়ের দায়ের করা মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। অভিযুক্ত রবিন কে আমরা গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে । আদালত তাকে হাজতে পাঠিয়েছেন।