শহরে ডিজিটাল প্রি-পেইড মিটার রিচার্জে ভোগান্তি

বিন্দু তালুকদার
শহরে বিদ্যুতের ডিজিটাল প্রি-পেইড মিটার রিচার্জ পেতে নেটওয়ার্ক বিড়ম্বনায় গ্রাহকরা চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন। বিভিন্ন এলাকার গ্রাহকরা কাঙ্খিত সময়ে দোকানগুলোতে রিচার্জ করতে পারছেন না বলে জানা গেছে।
তবে সুনামগঞ্জ শহরের একাধিক রিচার্জের দোকান মালিক জানিয়েছেন, গত কয়েকদিন চরমভাবে নেটওয়ার্ক খারাপ থাকার পর সোমবার সকাল থেকে কিছুটা ভাল হয়েছে এবং রিচার্জ দেয়া সম্ভব হচ্ছে। এর আগে সারদিনে এক-দুইজনকে রিচার্জ দেয়া সম্ভব হত না। রিচার্জ দেয়ার সফটওয়ার ওপেনই হত না। রির্চাজ কার্ড পেতে চরম ভোগান্তির কথা স্বীকার করেছেন শহরের একাধিক ব্যবসায়ী।
বিদ্যুৎ অফিস সূত্র জানায়, সুনামগঞ্জ শহর ও আশপাশ এলাকার ১৯,৯০০ বিদ্যুৎ গ্রাহক রয়েছেন। এর মধ্যে প্রি-পেইড মিটারের আওতায় গ্রাহক সংখ্যা রয়েছে ১২ হাজার ৭০০। এসব গ্রাহককের জন্য বিদ্যুৎ অফিসে সেবাকেন্দ্র মাত্র একটি। পাশাপাশি ডাচ্ বাংলা ব্যাংক লি. ও স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লি. এর রিচার্জ করা যায়। ব্যাংকে নিয়ম অনুযায়ী সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত রিচার্জ করার জন্য টাকা জমা করা যায়। তবে বিদ্যুৎ অফিসে সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত রিচার্জ করা যায়।
শহরে বেশ কিছু দোকানও রয়েছে। তবে দোকানের সংখ্যা এখনও গ্রাহকদের তুলনায় পর্যাপ্ত নয়। গত বৃহস্পতিবার ব্যাংক ও বিভিন্ন দোকানে রিচার্জ করতে না পেরে বিদ্যুৎ অফিসে ভিড় করেছিল গ্রাহকরা।
শহরের ময়নার পয়েন্টে প্রি-প্রেইড মিটারের গ্রাহক আবুল কালাম আজাদ সোমবার বিকালে শহরের পৌর মার্কেটের বিপরীতে ডা. এ লেইচ সেন্টারের রেড রৌজ এন্টারপ্রাইজে এসেছিলেন কার্ড রিচার্জ করতে। এসময় তাঁর সাথে এ প্রসঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, আগে দোকানে আসলে সবাই বলতেন নেটওয়ার্ক কাজ করছে না। তবে আজকে (সোমবার) কার্ডে রিচার্জ করা সম্ভব হয়েছে। সোমবারের আগে অনেকেই সময়মত রিচার্জ করতে ভোগান্তির শিকার হয়েছেন বলে জানান তিনি।
গ্রাহক আবুল কালাম আরো বলেন,‘ প্রি-প্রেইড মিটারের রিচার্জ করা বেশ ঝামেলার বিষয়। কারণ ব্যাংকে রিচার্জ করতে হলে দুপুর ১ টার মধ্যে যেতে হয়। দুপুর ১ টার পর গেলে ফিরে আসতে হয়।’
রেড রৌজ এন্টারপ্রাইজের মালিক রুহেল আহমদ লিমন বলেন,‘ আজ (সোমবার) থেকে গ্রাহকদের রিচার্জ করা সম্ভব হচ্ছে। এর আগে গ্রাহকদের না বলতে বলতে নিজেরই খুব খারাপ লাগত। কারণ নেটওয়ার্ক কোন কাজই করত না। দিনে এক-দুইজনকেই রিচার্জ করে দেয়া সম্ভব হত না।’
ষোলঘর পয়েন্টের ডেফোডিল টেলিকম ও গ্রামীণ ফোন বিল পে সেন্টারের প্রোপ্রাইটর গোলাম হাফিজ বলেন,‘ রবিবার থেকে ভাল সার্ভিস পাওয়া যাচ্ছে। তবে এর আগে ২৭ জুন থেকে তিন-চার দিন খুবই খারাপ ছিল। সে সময় বিদ্যুৎ বিভাগের সার্ভার কাজ করেনি।’
পৌর মার্কেটের প্রিয়জন কম্পিউটার এর প্রোপ্রাইটর বিধান নাথ বলেন,‘বিদ্যুতের প্রি-প্রেইড মিটার রিচার্জ করতে গত কয়েক দিন নেটওয়ার্কে বেশ বিরক্ত করছে। প্রতিদিনই লোকজন এসে ফিরে যেত, তবে সোমবার থেকে রিচার্জ দেয়া সম্ভব হচ্ছে।’
সুনামগঞ্জ আবাসিক বিদ্যুৎ বিতরণ ও রক্ষণাবেক্ষণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সেলিম বলেন,‘ প্রতিদিন নেটওয়ার্ক সমস্যা হয় না, মাঝে মধ্যে হয়। রিচার্জে যখন সমস্যা দেখা দেয় তখন সিলেট, জামালপুর ও ময়মনসিংহ এলাকায় একসাথে হয়। তবে যখনই সমস্যা দেখা দেয় তখনই আমরা ঢাকায় কথা বলি। ’
তিনি আরও বলেন,‘গত কয়েকদিন আগে নেটওয়ার্কে একটু সমস্যা ছিল। যার কারণে বৃহস্পতিবার অফিসে একটু ভিড় করেছিলেন গ্রাহকরা। তারপরও রবিবার থেকে তা সমাধান হয়েছে। এখন ব্যাংক, অফিস ও ফোনের দোকানগুলোতে ভালভাবেই কাজ করছে। প্রি প্রেইড কার্ড রিচার্জে গ্রাহকদের আর কোন সমস্যা হচ্ছে না।’