শাল্লার ফয়জুল্লাহপুরে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা

শাল্লা প্রতিনিধি
শাল্লা উপজেলায় গত ১৪ আগস্ট হবিবপুর ইউনিয়নের ফয়জুল্লাহপুর গ্রামের শিক্ষক আব্দুল আলী গ্রæপ ও সাদ্দাম হোসেন গ্রæপদের মধ্যে পুর্ব শত্রæতার জের ধরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে নারী সহ বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়ে। আহতরা সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে চিকিৎসা নিচ্ছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এই ঘটনার জের ধরে পরদিন সাদ্দাম গ্রæপ অপর পক্ষ আব্দুল আলীর পক্ষের ৬ টি পরিবারের উপর হামলা করে ব্যাপক ভাংচুরের ঘটনা ঘটায়। এরপর থেকে গ্রামে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এ ব্যাপারে শিক্ষক আব্দুল আলীর ভাই শফিকুল ইসলাম বাদি হয়ে ১৫ই আগষ্ট একই গ্রামের সামছু মিয়ার ছেলে সাদ্দাম হোসেন ওছন আলীর ছেলে শরিফ উদ্দিনকে আসামী করে শাল্লা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৭ জনকে গ্রেফতার করে।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ফয়জুল্লাপুর গ্রামের গাবুদ্দিন মিয়ার ছেলে মো. কাউসার মিয়া, আবুল মোতালিবের ছেলে দুদু মিয়া, তার সহোদর সুজন মিয়া, খোকন মিয়া, সাজু মিয়ার ছেলে মোরশিদ কামাল, বাচ্ছু মিয়ার ছেলে সাদ্দাম হোসেন ও আজির হামজার ছেলে মো. ফুল মিয়া প্রমুখ।
এ ব্যাপারে শাল্লা থানার ওসি মো. মোঃ আশরাফুল ইসলাম জানান, মামলার বাদি বিবাদি আপন ভায়রা শ্যালক সমদ্বি তাদের মধ্যে ফসলরক্ষা বাধেঁর পিআইসির টাকা পয়সা নিয়ে মূলত বিরোধ চলে আসছিল। এর জেরধরে সংঘর্ষ ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। মামলা হয়েছে ৭ জন আসামী গ্রেফতার হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।