শাল্লায় দুই ইউপি সদস্যের কাণ্ড

শাল্লা প্রতিনিধি
শাল্লায় ভিজিএফ কার্ড নিয়ে কথা কটাকাটির জের ধরে বাহাড়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত আসনের সদস্য আভা রানী দাসের স্বামী ও দুই সন্তান কর্তৃক প্রহৃত হয়েছেন একই ইউপির ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ব্রজলাল দাস (৪১)।
আহত ওয়ার্ড সদস্য ব্রজলাল দাস শাল্লা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার অবস্থা ভাল নয় বলে জানান চিকিৎসকরা।
জানা যায়, রবিবার বেলা ২ টার দিকে বাহাড়া ইউনিয়ন পরিষদের পেছনে ভিজিএফ কার্ড নিয়ে আভা রানীর স্বামী সীতেশ দাস ও ব্রজলাল দাসের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরে আভা রানীর স্বামী সীতেশ দাস ও ২ ছেলে সুজন দাস ও ঝুটন দাস
মিলে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের ভেতরেই ব্রজলাল দাসের উপর হামলা চালায়। এসময় পরিষদের অন্য সদস্যরা ও আশেপাশের লোকজন তাকে আহত অবস্থায় হসপাতালে ভর্তি করেন।
এনিয়ে আভা রানীর ছেলে সুজন দাসের সাথে ফোনে কথা হলে, তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, তার বাবার (সীতেশ দাশ) সঙ্গে ব্রজলাল দাস খারাপ আচরণ করায় তারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে।
ব্রজলাল দাস এ প্রসঙ্গে বলেন আভা রানীর দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় তার স্বামী ও ছেলেরা তার উপর হামলা করেছে।
এবিষয়ে বাহাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বিধান চৌধুরী বলেন পরিষদের ভিতরে ইউপি সদস্য ব্রজলাল দাসের উপর হামলা হয়েছে। এই বিষয়ে আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।