শাল্লা শত্রুমুক্ত দিবস পালিত

শাল্লা প্রতিনিধি
শাল্লা উপজেলায় মুক্তিবাহিনীর প্রবল আক্রমণে রাজাকার ও পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করে। তৎকালীন বীর মুক্তিযুদ্ধা কমান্ডার সুকুমার চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে ৭ জন পাকসেনা সদস্যসহ অশংখ্য রাজাকার, আলবদর আত্মসমর্পণ করে। পরে বেশ কয়েক জন রাজাকারকে উপজেলা সদরের উত্তর পাশে কলাকান্দি গ্রামের নিকটে গণকবর দেয়া হয়।
ঐতিহাসিক দিবসটি উপলক্ষে শনিবার বেলা ১০ টায় স্থানীয় শহীদ মিনার থেকে একটি র্য়্যালী উপজেলা সদরের প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ শেষে গণমিলনায়তনে সামনে এসে শেষ হয়। সেখানে ১ মিনিট নিরবতা পালনও করেন মুক্তিযোদ্ধারা।
পরে উপজেলা গণমিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও কমান্ডার বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ শাল্লা উপজেলা ইউনিটির আয়োজনে এক আলোচলা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মুক্তাদির হোসেনের সভাপতিত্বে ও আজাদ মোহাম্মাদ আলেকের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আল আমিন চৌধুরী।
আরো বক্তব্য রাখেন সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অবনী মোহন দাস, মুক্তিযোদ্ধা সুবল চন্দ্র দাস, রাধাকান্ত দাস, বীরেন্দ্র কুমার দাস, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সদস্য হাবিবুর রহমান, রথীন্দ্র চন্দ্র দাস, রিপন চন্দ্র দাস প্রমুখ।
এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দিপু রঞ্জন দাস, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অমিতা রাণী দাস, বাহাড়া ইউপি চেয়ারম্যান বিধান চৌধুরী, হবিবপুর ইউপি চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল, আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অলিউল হক, শাল্লা থানার অফিসার ইনচার্জ আশরাফুল ইসলাম সাংবাদিকবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধাসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।