‘শিক্ষিত মেয়েকে যৌতুক ছাড়াই বিয়ে দেয়া যায়’

স্টাফ রিপোর্টার
পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর আই.ই.এম ইউনিটের উদ্যোগে এবং জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সহযোগিতায় জেলা পর্যায়ে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের অংশগ্রহণে অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১টায় শহরের হাছননগর এলাকায় ইপিআই ভবন মিলনায়তনে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ সিলেট বিভাগীয় পরিচালক ও যুগ্ম সচিব মো. কুতুব উদ্দিন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন,‘সকল শ্রেণি পেশার মানুষের সমন্বয়ে পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে সচেতনতা তৈরি করা হচ্ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ, কিশোর-কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য, পুষ্টি, নিরাপদ মাতৃত্ব ও নবজাতকদের যতœ এবং জেন্ডার বিষয়ে প্রচার ও জনসচেতনতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে বিদেশী বা ভাল পাত্র পেলে দ্রুত বিয়ে দেয়ার প্রবণতা এখনও আছে। মনে রাখতে হবে সুশিক্ষিত পাত্রী সমাজের বোঝা নয়। একজন শিক্ষিত মেয়েকে ভাল পাত্র দেখে যৌতুক ছাড়াই বিয়ে দেয়া যায়। মেয়েদের সুশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে পারলে পরিবার ও দেশের অনেক উন্নতি হয়।’
পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের জেলা ফ্যাসিলেটিটর সামছুল আলমের পরিচালনায় কর্মশালায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সোহেল মাহমুদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জয়নাল আবেদীন, আই.ই.এম ইউনিট পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর ঢাকার সহকারী পরিচালক আছমা হাসান, ডেপুটি সিভিল সার্জন মোহাম্মদ আশরাফুল হক, সুনামগঞ্জের পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সহকারী পরিচালক ডা. ননী ভূষণ তালুকদার।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জের পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক মো. মোজাম্মেল হক।
কর্মশালায় পরিকল্পিত পরিবার গঠন, বাল্যবিয়ে ও কৈশোরে গর্ভধারণ প্রতিরোধ, কিশোর-কিশোরীদের প্রজনন স্বাস্থ্য, পুষ্টি, নিরাপদ মাতৃত্ব ও নবজাতকদের যতœ এবং জেন্ডার বিষয়ে প্রচার ও জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে আলোকপাত করা হয়।