শীতার্ত মানুষের পাশে এবার প্রবাসীদের কম দেখা যাচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার
শীতার্ত মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণে এবার প্রবাসীদের কম দেখা যাচ্ছে। প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুর এবং ছাতকেও প্রবাসীদের সহায়তা চোখে পড়ছে না। গত এপ্রিলে হাওরডুবির ঘটনার পরও প্রবাসী সহায়তা কম ছিল। স্থানীয়রা বলেছেন, ‘প্রবাসীদের বিশেষ করে যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের দ্বিতীয় প্রজন্মের অভিবাসীরা কমিউনিটির নেতৃত্বে রয়েছে। বাংলাদেশের সঙ্গে এই প্রজন্মের প্রবাসীদের যোগাযোগ কমে গেছে। দেশের মানুষের সংকটকালে প্রবাসীদের সহায়তাও কম আসছে।’
প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুরে ৫ বছর আগে প্রাকৃতিক দুর্যোগে কিংবা শীতে সহায়তা নিয়ে এগিয়ে এসেছে বিভিন্ন সংগঠন। এবার প্রচ- শীতে মানুষ জবুতুভু হলেও প্রবাসীদের দেখা যাচ্ছে না।
যুক্তরাজ্যস্থ জগন্নাথপুর উন্নয়ন সংস্থা, জগন্নাথপুর ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট, জগন্নাথপুর ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্ট, যুক্তরাজ্যস্থ জগন্নাথপুর পৌরসভা উন্নয়ন সংস্থা, যুক্তরাজ্যস্থ সুনামগঞ্জ সমিতি, ছাতকের মমতা  
 চ্যারেটি ট্রাস্টসহ অনেক পরিচিত কমিউনিটি সংগঠনকে এবার শীতার্তদের সহায়তায় এখনো দেখা যায়নি।
যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদ বললেন, ‘প্রবাসীরা সব সময়ই দেশের মানুষের দুর্যোগে পাশে দাঁড়ায়, এবারও দাঁড়াচ্ছে-দাঁড়াবে। আমি নিজেও কিছু শীতবস্ত্র বিতরণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’
যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতা, সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপি’র সহসভাপতি আব্দুল লতিফ জেপি বললেন,‘প্রবাসীরা দিচ্ছেন, আগের মতো হয়তো দিতে পারছেন না, যুক্তরাজ্যের বড় বড় ব্যবসায়ীরা এখন দ্বিতীয় প্রজন্মেও তরুণরা, তারাই কমিউনিটির নেতৃত্ব দিচ্ছে, বাংলাদেশের সঙ্গে তাঁদের যোগাযোগ কম, এ কারণে মমত্ববোধও কিছুটা কম। এছাড়া এখন যুক্তরাজ্যে থাকা বাংলাদেশীদের সামাজিক মর্যাদা আগের চেয়ে বেড়েছে, খরচও বেড়েছে।’ তিনি জানান, তিনি নিজে কয়েকদিন হয় সুনামগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় শীতবস্ত্র বিতরণ করছেন।



আরো খবর