শেখ হাসিনার সরকার উন্নয়নে বিশ্বাসী -এমএ মান্নান

জগন্নাথপুর অফিস
অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান বলেছেন, ‘শেখ হাসিনার সরকার কথায় নয়, কাজে বিশ্বাসী। তাই গ্রাম বাংলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে আজ উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। অতীতের কোন সরকার গ্রামের উন্নয়নে নজর দেয়নি। শেখ হাসিনার সরকার গ্রাম বাংলার বঞ্চিত মানুষকে উন্নয়নের আওতায় নিয়ে এসেছেন।’
শহরের মতো আমরা গ্রামের প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুতের আলো পৌঁছে দিয়েছি। এছাড়া ঘরের কাছে কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে স্বাস্থ্য সেবাসহ নাগরিকদের মৌলিক চাহিদার সবটুকু বর্তমান সরকার বাস্তবায়ন করেছে। উন্নয়ন প্রশ্নে শেখ হাসিনার নেতৃত্বের বিকল্প নেই। তাই সব ভেদাভেদ ভুলে দেশের স্বার্থে উন্নয়নের স্বার্থে নৌকাকে বিজয়ী করুন।
তিনি বলেন, আগামী নির্বাচন আমার জীবনের শেষ নির্বাচন। আমি বিশ্বাস করি আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে আপনাদের কাছে নৌকা দিয়ে পাঠাবেন। আপনারা আপনাদের মহামূল্যবান ভোট দিয়ে এলাকার উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে নৌকাকে বিজয়ী করবেন।
বুধবার জগন্নাথপুর উপজেলায় দিনব্যাপী উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের উদ্বোধন শেষে জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন তিনি।
মন্ত্রী সকালে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে শিবগঞ্জ-রানীগঞ্জ সড়কে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে সড়ক উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন। এরপর রানীগঞ্জ রফিক উল্যাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন ও কামড়াখাই জয়নগর দাখিল মাদ্রাসায় ৭২ লাখ টাকা ব্যয়ে চারতলা ভিত বিশিষ্ট একতলা ভবনের উদ্বোধন করেন।
বিকেলে মন্ত্রী রানীগঞ্জ ইউনিয়নের কামড়াখাই, জয়নগর, কুশারাই, হিলালপুর, ইসলামপুর ও শ্যামারগাঁও গ্রামের ৭৫৫ পরিবারের মধ্যে পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ উদ্বোধন করেন। পরে এক জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।
কামড়াখাই-জয়নগর দাখিল মাদ্রাসা মাঠে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা দবির মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আকমল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু, রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানা, আওয়ামী লীগ সভাপতি সুন্দর আলী, সাধারণ সম্পাদক ছদরুল হোসেন, মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল লতিফ প্রমুখ।
উন্নয়ন প্রকল্পগুলো উদ্বোধনকালে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম, জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হারুনুর রশীদ চৌধুরী, জগন্নাথপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর সিলেটের সহকারী প্রকৌশলী সামছুল আবেদীন খান, উপসহকারী প্রকৌশলী মনির হোসেনসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তা, রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।