সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা নিশ্চিতের আহ্বান ১৪ দলের

সু.খবর ডেস্ক
নির্বাচন সামনে রেখে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।
ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠনসমূহ, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাথে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘অনুরোধ থাকবে নির্বাচন কমিশনের কাছে নির্বাচন যখন শুরু হয়ে গেছে এখন থেকে আমাদের যে সকল সংখ্যলঘু ভাইবোনেরা আছেন, তাদের যেন নিñিদ্র নিরাপত্তা দেয়া হয়। আমি নির্বাচন কমিশন ও আইন-শৃঙ্গলা বাহিনীর কাছে এ ব্যাপারে অনুরোধ জানাচ্ছি।’
কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র বলেন, অতীতে আমরা দেখেছি নির্বাচনকে সামনে রেখে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে নানা রকম ভয়ভীতি দেখানো হয়। এই কাজ কারা করে তা আপনারা সকলেই জানেন। তাই নির্বাচন কমিশনের প্রতি আমাদের আহবান থাকবে বিষয়টি ভালভাবে দেখবেন। ভবিষ্যতে যদি এমন ঘটনা ঘটে তাহলে আমরা সহ্য করবো না।
ক্ষমতার লোভে ড. কামাল হোসেন ও মাহমুদুর রহমান মান্না বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, ‘ড. কামাল হোসেনরা একসময় আওয়ামী লীগে ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর সান্নিধ্য পেয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু মন্ত্রীও করেছিলেন। সেই কামাল হোসেন এখন স্বাধীনতাবিরোধীদের জোটসঙ্গীদের সঙ্গে ঐক্য করেছেন। এটি জাতির জন্য দুর্ভাগ্যের।’
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কথা বলে, মুজিবের চেতনার কথা বলে যারা এই বিএনপি-জামায়াত নামক একটি দুষ্টচক্র, যারা পরাশক্তির মূল পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে তাদের ইনশাল্লাহ আগামী নির্বাচনে চূড়ান্ত ভাবে পরাজিত করা হবে।
তিনি বলেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনগণ এসব বর্ণচোরা ভন্ডদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করবে ব্যালটের মাধ্যমে।
আগামী বিজয় দিবস থেকে সারাদেশের সকল জেলা উপজেলায় বিজয় মঞ্চ করা হবে জানিয়ে নাসিম বলেন, এই সকল বিজয় মঞ্চ থেকে মুক্তিযুদ্ধ সময়কার গান, মুক্তিযুদ্ধের ওপর নির্মিত বিভিন্ন নাটকসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান প্রচার করা হবে। বিজয়ের মাসেই স্বাধীনতার বিরোধীশক্তিকে পরাজিত করা হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
এ সময়ে নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়া, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্যপরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত, সেক্টর কমান্ডার কে এম সফিউল্লাহ, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির, আওয়ামী লীগের উপ দপ্তর সম্পাদক বিপব বড়–য়া, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সূত্র : বাসস