সবজি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

আকরাম উদ্দিন
এবার দুই দফা ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সবজি ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানের প্রায় ১০ হেক্টর সবজির ফসল নষ্ট হয়েছে বলে উপজেলা কৃষি বিভাগ জানিয়েছে। এই ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে কৃষকদের প্রশিক্ষণসহ বীজ সহায়তা দেওয়া হবে।
সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়ন, জাহাঙ্গীরনগর ও রঙ্গারচর ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানের প্রায় ১০ হেক্টর সবজি ফসলের ক্ষতি হয়েছে। এ বছরের প্রথম পর্যায়ের শশা, করলা, কাকরুল, চিচিংগা, জিঙ্গা, পুরল, চিন্নাত বেগুন (চিকন সাইজের), বেন্ডি, জালী কুমড়া, আউসা কুমড়া ও পেঁপেঁ ফসলের মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে।
সুরমা ইউনিয়নের সৈয়দপুর, মুসলিমপুর, কৃষ্ণনগর, বেরীগাঁও, বেলাবরহাটী, ষোলঘর, বাঘমারা, ভৈষারপাড়, নলুয়া, বালিকান্দি, সাহেবনগর এলাকায় সবজি ফসলের ক্ষতি হয়েছে।
জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের মঙ্গলকাটা, আমপাড়া, চৌমুহনী, নারায়নতলা, ফেনিবিল, ডলুরা, কাইয়ারগাঁও, নৈদারখামার, ঝরঝরিয়া, গোদীগাঁও, নতুন গোদীগাঁও, ইসলামপুর, খাগেরগাঁও, দলাইপাড় প্রভৃতি এলাকার সবজি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
রঙ্গারচর ইউনিয়নের চিনাউড়া, কান্দিগাঁও, চড়ারপাড়, বক্তেরগাঁও, মালাইগাঁও, রংপুর, বনগাঁও, নৈগাং, বিরামপুর, বল্লবপুর, হাসাউড়া প্রভৃতি এলাকার সবজি ফসলের ও মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে।
রঙ্গারচর ইউনিয়নের কৃষক ও ব্যবসায়ী জাকির হোসেন বলেন,‘আমি ৫ কেয়ার জমিতে শশা, ডাটা ও পুঁশাকের চাষ করেছিলাম। ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সব নষ্ট হয়ে গেছে।’
জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের ঝরঝরিয়া গ্রামের কৃষক আছির আলী বলেন,‘জালী কুমড়ার চাষ করেছিলাম। এবার পাহাড়ি ঢলে নষ্ট হয়ে গেছে।’
নৈদারখামার গ্রামের আবুল কাশেম বলেন,‘শশা ও জালী কুমড়া এবং অন্যান্য সবজির চাষ করেছিলাম। ভারী বর্ষণে ও পাহাড়ি ঢলে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।’
গোদীগাঁওয়ের রহমত আলী ও জসু মিয়া বলেন,‘এবার ও শশা, করলা, কাকরুল, চিচিংগা, জিঙ্গা, পুরলসহ অন্যান্য জাতের সবজির চাষ করেছিলাম। দুই বারের ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সবজির ফসল সব নষ্ট হয়ে গেছে।’
আমপাড়া গ্রামের আব্দুল খালেক বলেন,‘এবার ও সকল প্রকার সবজির ফসল অল্প অল্প করে করেছিলাম। বেশি করেছিলাম চিন্নাত বেগুনের চাষ। পাহাড়ি ঢলে সব নষ্ট হয়ে গেছে।’
সৈয়দপুর গ্রামের নাদের শাহ বলেন,‘এবার এমন ক্ষতি হয়েছে যে সবজি ফসলের অবশিষ্ট কিছুই রইল না। ধুয়ে-মুছে সব নিয়ে গেছে পাহাড়ি ঢলে।’
মঙ্গলকাটা এলাকার ব্যবসায়ী আব্দুর রব বলেন,‘এবার আমাদের এলাকার সবজি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। দুই দফা পাহাড়ি ঢলে মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে সবজি ফসলের।’
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি অফিসার সালাহ উদ্দিন টিপু বলেন,‘সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানের প্রায় ১০ হেক্টর সবজির ফসল নষ্ট হয়েছে। এই ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে কৃষকদের প্রশিক্ষণসহ বীজ সহায়তা দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।