সরকারিকরণের প্রজ্ঞাপন জারি হলো ৮ ডিগ্রি কলেজের

স্টাফ রিপোর্টার
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী চূড়ান্তভাবে সরকারিকরণের প্রক্রিয়া শেষ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে সুনামগঞ্জের ৮টি কলেজের। সরকারি কলেজ নেই এমন উপজেলায় একটি করে কলেজ সরকারিকরণের আওতায় জেলার ৮টি কলেজকে সরকারিকরণ করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব নাছিমা খানম স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে। কলেজগুলো সরকরিকরণের খবরে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে আনন্দ, উৎসাহ, উদ্দীপনা বিরাজ করছে। সুনামগঞ্জের ৮টি সহ নতুন করে ২৭১টি কলেজ সরকারি হওয়ায় দেশে মোট সরকারি কলেজের সংখ্যা দাঁড়ালো ৫৯৮ টিতে।
সরকারিকরণকৃত সুনামগঞ্জের ৮টি ডিগ্রি কলেজ হলো বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার দিগেন্দ্র বর্মন ডিগ্রি কলেজ, ছাতক ডিগ্রি কলেজ, দিরাই ডিগ্রি কলেজ, ধর্মপাশা ডিগ্রি কলেজ, দোয়ারাবাজার ডিগ্রি কলেজ,জগন্নাথপুর ডিগ্রি কলেজ, শাল্লা ডিগ্রি কলেজ, জামালগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ।
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘সরকারিকৃত কলেজ শিক্ষক ও কর্মচারী আত্মীকরণ বিধিমালা-২০১৮’ এর আলোকে জেলা ও উপজেলাধীন ২৭১টি কলেজ ৮ আগস্ট হতে সরকারি করা হলো।’
শাল্লা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ বলেন, ‘২৭১ টি কলেজের মধ্যে আমাদের কলেজটিও সরকারি হওয়ায় আমরা খুশি। বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর প্রতিশ্রুতি রেখেছেন। তিনি আমাদের দাবি পূরণ করেছেন। হাওর পাড়ের অবহেলিত কলেজটিকে সরকারি করায় আওয়ামী লীগ সরকারের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। আমাদের কাজের গতি বাড়বে। শিক্ষার্থীরা সরকারি প্রতিষ্ঠানেই লেখাপড়ার সুযোগ পাবে।’
জামালগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা শিক্ষাবান্ধব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কথা রেখেছেন। আমরা মুজিব কন্যার কাছে কৃতজ্ঞ। দোয়া করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেনো আরো দীর্ঘদিন শিক্ষাবান্ধব সরকার হিসাবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনে সফল ও স্বার্থক হন।’
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার দিগেন্দ্র বর্মন ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ বিমলাংশু রায় বলেন, ‘নানা সংকটের মধ্যেও দিগেন্দ্র বর্মন ডিগ্রি কলেজ ভালো ফলাফল করেছে। সরকারিকরণের ফলে এখন শিক্ষা কার্যক্রম আরো গতিশীল হবে। সরকারিকরণের খবরে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে আনন্দ, উৎসাহ, উদ্দীপনা বিরাজ করছে। কলেজটি সরকারিকরণ হওয়ায় আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, সংসদ সদস্য অ্যাড. পীর ফজলুর রহমানের কাছে কৃতজ্ঞ।’
শিক্ষাবিদ ও সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ পরিমল কান্তি দে বলেন, ‘সুনামগঞ্জের ৮টি কলেজ সরকারিকরণ হওয়ায় আমরা আনন্দিত। দীর্ঘদিন ধরে কলেজগুলো সরকারিকরণের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকগণ উদ্বিগ্ন ছিলেন। তাদের দীর্ঘদিনের আশংকা ও অনিশ্চয়তা দূর হয়েছে। তবে কলেজগুলো শুধু সরকারিকরণ করলেই হবে না, শিক্ষক সংকট দূর করতে হবে। নির্ধারিত শিক্ষকের পদ সৃষ্টি এবং অবকাঠামো তৈরী করতে হবে। অন্যথায় শিক্ষার পরিবেশ বিঘিœত হবে।’
সরকারিকরণকৃত কলেজ শিক্ষক ও কর্মচারী আত্মীকরণকৃত বিধিমালা ২০১৮’ এর আওতায় কলেজের শিক্ষকদের সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) অধীনে পরীক্ষার মাধ্যমে ক্যাডারভুক্তিরও সুযোগ রাখা হয়েছে। তবে বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের ক্যাডারভুক্তির সুযোগ রাখা নিয়ে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের কর্মকর্তা ও সরকারি হতে যাওয়া কলেজ শিক্ষকদের মধ্যে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে।
বিধিমালা অনুযায়ী, প্রয়োজনীয় যোগ্যতা থাকলে বেসরকারি কলেজের যে কোনো শিক্ষক শিক্ষা ক্যাডারের প্রভাষক পদে নিয়োগ পেতে পিএসসির অধীনে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন। পিএসসির সুপারিশ পেলে তাকে শিক্ষা ক্যাডারে প্রভাষক পদে নিয়োগ দেওয়া হবে। আর ক্যাডারভুক্ত শিক্ষকরা বিভিন্ন সরকারি কলেজ ও দফতরে বদলিও হতে পারবেন। তবে এর পূর্ব পর্যন্ত সরকারি হতে যাওয়া কলেজের অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ, সহকারী অধ্যাপক ও প্রভাষকরা নন-ক্যাডার হিসেবে নিজ নিজ পদে নিয়োগ পাবেন। তাদের চাকরি আর বদলিযোগ্য হবে না।
এদিকে সিলেটের সরকারী হওয়া অন্যান্য কলেজগুলোর মধ্যে রয়েছে মদন মোহন কলেজ, গোয়াইনঘাট কলেজ, বালাগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ, ফেঞ্চুগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ, ঢাকা দক্ষিণ ডিগ্রি কলেজ, কানাইঘাট ডিগ্রি কলেজ, বিশ্বনাথ কলেজ, দক্ষিণ সুরমা কলেজ, গোয়ালাবাজার আদর্শ মহিলা ডিগ্রি কলেজ ও ইমরান আহমদ মহিলা কলেজ। মৌলভীবাজারের কলেজগুলোর মধ্যে রয়েছে বড়লেখা ডিগ্রি কলেজ, কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজ, রাজনগর ডিগ্রি কলেজ, কমলগঞ্জ গণমহাবিদ্যালয়, তৈয়বুন্নেছা খানম একাডেমি ডিগ্রি কলেজ। হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ, শাহজালাল কলেজ, জনাব আলী ডিগ্রি কলেজ, নবীগঞ্জ কলেজ, আলীম সোবহান চৌধুরী কলেজ।