সরকারি গোদামে ধান কেনার সময় বাড়ল ১৫ দিন

স্টাফ রিপোর্টার
আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সুনামগঞ্জের ১১ উপজেলায় ধান-চাল কেনার সময় বাড়ানো হয়েছে। গত মঙ্গলবার খাদ্য অধিদপ্তর থেকে এই চিঠি জেলা খাদ্য কর্মকর্তার অফিসে এসে পৌঁছায়।
খাদ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, সরকার এবার প্রতি কেজি ধান ২৬ টাকা অর্থাৎ প্রতি মণ ধান ১০৪০ টাকা করে কিনেছে। চাল আতপ ৩৫ টাকা এবং সিদ্ধ কেনা হচ্ছে ৩৬ টাকা কেজিতে। গত ২৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশে ধান-চাল কেনা শুরু হয়।
সুনামগঞ্জে কেনা শুরু করতে করতেই ২ সপ্তাহ বিলম্ব হয়। জেলায় প্রায় ১২ লাখ মেট্রিক টন ধান উৎপাদান হলেও দুই দফায় মাত্র ১৭ হাজার ৩৫৩ টন ধান এবং ৩১ হাজার ৯৭৭ টন চাল কেনার নির্দেশনা দেওয়া হয়। এরমধ্যে আতপ ১৭ হাজার ৭৯৮ এবং সিদ্ধ ১৪ হাজার ১৭৯ টন কেনার কথা।
শনিবার পর্যন্ত ধান কেনা হয়েছে প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার টন এবং চাল কেনা হয়েছে ১৯ হাজার ৮৬৪ টন। এরমধ্যে আতপ কেনা হয়েছে ১০ হাজার ৬৬৭ এবং সিদ্ধ কেনা হয়েছে ৯ হাজার ১৯৭ টন।
সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী কেনার শেষ দিন (৩১ আগস্ট) পর্যন্ত লক্ষ্যমাত্র পূরণ না হওয়ায় জেলা খাদ্য কর্মকর্তা সুনামগঞ্জে ধান চাল কেনার সময়
বাড়ানোর আবেদন করেন।
শেষে খাদ্য অধিপ্তর থেকে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ধান কেনা এবং ৮ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চাল কেনার নির্দেশনা দেন।
জেলা খাদ্য অফিস সূত্রে জানা যায়, ৭ সেপ্টম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ন্যায্য মূল্যের ২৭০০ টন চাল খাদ্য বিভাগ থেকে সরানো হবে। এই চাল সরানোয় খাদ্য গোদাম গুলোতে নতুন চাল কিনে রাখার স্থান ফাঁকা হবে। ওই সময় থেকেই চাল কেনা শুরু হবে।
উৎপাদিত ১২ লাখ টন ধানের মধ্যে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সরকারি সামান্য ধান-চাল কেনা সম্ভব হলো না কেন, এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জাকারিয়া মোস্তফা জানান, কৃষক তালিকা পেতে বিলম্ব এবং বৃষ্টি, বন্যা এবং গোদামে স্থান সংকুলান না হওয়ায় নির্ধারিত সময়ে ধান-চাল কেনা শেষ করা যায় নি। আগামী ১৫ দিনে কেনার লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হবে।