সরকারি সকল ওয়েবসাইট আপডেট রাখতে হবে প্রধান তথ্য কমিশনার

স্টাফ রিপোর্টার
প্রধান তথ্য কমিশনার মরতুজা আহমদ বলেছেন, বোর্ডের পরীক্ষার রেজাল্ট দেখার জন্য এখন আর বিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড দেখা লাগে না। মোবাইল ফোন ব্যবহার করে রেজাল্ট যে কেউ দেখতে পারেন। আপনি তথ্য কালেক্ট করবেন। আমাদের দেশের ওয়েবসাইট খুবই কার্যকর। এটার সাথে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের কানেকশন আছে, ডাটাবেজের কানেকশন আছে। তবে তথ্য শুধু দিলে হবে না, সংশ্লিষ্ট অফিসকে তথ্য আপডেটও করতে হবে। আমি এখানে আসতে আসতে জেলা প্রশাসকের ওয়েবসাইট দেখছিলাম। জেলা প্রশাসকের ওয়েবসাইট খুবই ভালো। প্রত্যেক ওয়েবসাইটে একটা তথ্য কর্ণার আছে। কে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, তথ্য অধিকার সম্পর্কিত কি কি আইন আছে, নির্দেশিকা আছে, এগুলিও রাখতে হবে ।
তিনি বলেন, কালকে (সোমবার) মধ্যনগর উপজেলায় এই জাতীয় প্রোগ্রাম আছে আমার। কিন্তু ওয়েবসাইটে মধ্যনগর উপজেলা আমি খুঁজে পাইনি। সব সময় ওয়েবসাইট আপডেট রাখতে হবে। আপডেট না রাখলে ওয়েবসাইট জনগণের কাজে লাগবে না, তারা বিভ্রান্ত হবে।
রবিবার সকালে তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ বিষয়ক জনঅবহিতকরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন ও সুনামগঞ্জ তথ্য কমিশনের আয়োজনে শহীদ আবুল হোসেন মিলনায়তনে সভায় প্রধান তথ্য কমিশনার আরও বলেন, তথ্য অধিকার জনগণের মৌলিক অধিকার। তথ্য একটি বিরাট শক্তি। জনগণের ক্ষমতায়ন ও অধিকার বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে তথ্য অধিকার আইন কাজ করছে। তথ্য অধিকার আইনের মধ্যে সকল কিছুর সুষ্ঠু ও সুন্দর সমাধান রয়েছে। সঠিক প্রক্রিয়ায় তথ্য চাইলে তথ্য দিতে কর্তৃপক্ষ বাধ্য। না দিলে শাস্তির ব্যবস্থাও আছে। তথ্য অধিকার আইনে সব সমস্যার সমাধান আছে। তথ্যের অবাধ প্রবাহ ঠিক রাখার জন্যই তথ্য অধিকার আইন করা হয়েছে। আমাদের ওয়েবসাইটে এই আইনের উপর একটা কোর্স আছে। মাত্র আড়াই ঘন্টায় কোর্স করা যায়, কোর্সটি করলে সব জেনে যাবেন। বাংলাদেশে ৫২ হাজার ওয়েবসাইট সম্পর্কিত যে ওয়েবপোর্টাল তা বিশ্বের সর্ববৃহৎ ওয়েবপোর্টাল। এই বছর এটি গ্লোবাল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে। প্রতিদিন ১ মিলিয়ন তথ্য আদান প্রদান করে এটি।
তিনি বলেন, গত বন্যায় জেলা প্রশাসক এবং জেলা প্রশাসন সহ সকলেই অত্যন্ত স্বচ্ছতার সাথে কাজ করেছেন। সকল কার্যালয় এভাবে কাজ করলে দুনীর্তি পালানোর পথ পাবে না। আপনি অথরিটি আপনি কি করছেন তা স্বেচ্ছায় স্বপ্রণোদিত হয়ে জনগণকে জানাতে হবে। এটি তথ্য অধিকার আইনের শক্তি।
সহকারী কমিশনার আর্নিকা আক্তার সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শেখ মহি উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আবু সাইদ, সহকারী পরিচালক তথ্য কমিশন মো. সালাহ উদ্দিন, সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জমশেদ আলী, শহর বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসরিন আক্তার খানম, লবজান চৌধুরী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সাত্তার, সমাজসেবক নুরুর রব চৌধুরী।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক বিমল চন্দ্র সোম, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা সুনীল মন্ডল সহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।
তথ্য অধিকার আইন সম্পর্কে জানতে প্রধান তথ্য কমিশনার মরতুজা আহমদ কে প্রশ্ন করেন দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদ সচিব মিতালী বেগম তালুকদার, আলহেরা মাদ্রাসা সহকারী শিক্ষক মতিউর রহমান প্রমুখ।