সর্বোচ্চ পুরস্কার পেলো পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজ

শান্তিগঞ্জ প্রতিনিধি
‘শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে শান্তিগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস যৌথভাবে আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতা। অপরদিকে একই ব্যানারে পালিত জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ। বিভিন্ন সময়ে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা ও বাচাইয়ের মাধ্যমে বিজয়ী নির্বাচন করা হয়। দুই ক্যাটাগরিতে সর্বমোট ৬১টি পুরস্কারের মধ্যে সর্বোচ্চ পুরষ্কার পেয়েছে শান্তিগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজ। প্রতিযোগিতামূলক ১৩টি ও শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী ক্যাটগরিতে ১টি সহ মোট ১৪টি পুরস্কার জিতে নিয়েছে প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ উপলক্ষে ১১টি ও বঙ্গবন্ধু মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতায় ক, খ ও গ গ্রুপের বিভিন্ন ইভেন্টে মোট ৫০টি পুরস্কার (১ম, ২য় ও ৩য় স্থান ধরে) ছিলো। এর মধ্যে একজন শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থীসহ একাধিক ইভেন্টে পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা মোট ১৪টি পুরষ্কার অর্জন করেন। যা উপজেলার অন্যান্য স্কুলগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ। ২য় সর্বোচ্চ পুরষ্কার অর্জন করে ডুংরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ। এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে অর্জন করে ১২টি পুরষ্কার। জয়কলস উজানীগাঁও রশীদিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় অর্জন করে ১০টি পুরষ্কার।
পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজের হয়ে ‘ভাষা ও সাহিত্যে’ দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী সাদিয়া বেগম, ‘নৃত্যে’ দশম শ্রেণির প্রমি পাল ও সপ্তম শ্রেণির পূজা পাল, ‘শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী’ নবম শ্রেণির ছাত্র তুষার চক্রবর্তী, ‘সঙ্গীত’ (বাউল, রবীন্দ্র ও নজরুল) ও কবিতা আবৃত্তিতে নবম শ্রেণির রূপা দেব ও বৃত্ত চৌধুরী। জাতীয় সৃজনশীলতা ও উপস্থিত বিতর্কে এককভাবে একাধিক পুরস্কার অর্জন করেন অষ্টম শ্রেণির সীমান্ত রায় সুমিত। পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দ রমিজ উদ্দিন বলেন, শিক্ষার্থীদের অর্জনে আমরা খুশি। এজন্য আমার সকল সহকারি শিক্ষক, বিজয়ী শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের ধন্যবাদ জানাই। আমরা চেষ্টা করবো আমাদের এই ধারা অব্যাহত রাখতে।