সাংস্কৃতিক আয়োজনে পুজোর আনন্দ বাড়াবে প্রতিটি মন্ডপ

সজীব দে
পূজা মানেই ভিন্ন কিছু করার তাগিদ। নাটক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান-লীলা কীর্তন-গীতিনাট্য-ধামাইলে মন ভালো করার কিছু মুহূর্ত। প্রতিবারের মতোই এবারের পূজাতেও এর ব্যতিক্রম হচ্ছে না। সপ্তমী, অষ্টমী এবং নবমীতে ৩দিন মন্ডপগুলো জমিয়ে রাখবেন স্থানীয় শিল্পীরা। এক নজরে পৌর শহরের বিভিন্ন মন্ডপে আয়োজিত পূজার অনুষ্ঠানমালা Ñ
পশ্চিম নতুন পাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি
মহাসপ্তমীতে সন্ধ্যা ৬টায় বস্ত্র বিতরণ, সন্ধ্যা ৭টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এরপর অনুষ্ঠিত হবে গীতিনাট্য ‘মহিষাসুর বধ’। অমিত বর্মনের নির্দেশনায় বন্ধন থিয়েটারের নাট্যকর্মীরা এতে অংশগ্রহণ করবেন।
মহাঅষ্টমীতে রাত ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে লীলা কীর্ত্তন। লীলা কীর্ত্তন পরিবেশন করবেন হবিগঞ্জের অর্পনা রানি দাশ। দুর্গাবাড়ি সার্বজনীন পূজা কমিটি
মহাঅষ্টমীর দুপুরে দুর্গাবাড়ি নাটমন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন সুনামগঞ্জ সদর ও বিশ্বম্ভরপুর আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ এবং সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল হুদা মুকুট। রাতে অনুষ্ঠিত হবে সংগীতানুষ্ঠান ও নাটক ‘মহিষাসুর বধ’।
ষোলঘর রামকৃষ্ণ মিশন
শারদীয় দুর্গাপূজার মহানবমীর রাতে মঞ্চস্থ হবে নাটক ‘দুর্গতিনাশিনী দুর্গা’। মঞ্জু তালুকদারের পরিচালনা ও নির্দেশনায় সৌখিন নাট্যকর্মীরা এতে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন ষোলঘর রামকৃষ্ণ মিশন পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক যোগেশ্বর দাশ।
উত্তর নতুন পাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটি
মহাষষ্ঠীতে জলভরা অনুষ্ঠান। এলাকার মহিলারা মাটির কলস নিয়ে রিভার ভিউ থেকে মায়ের ¯œানের জন্য জল আনবেন। এরপর অনুষ্ঠিত হবে ধামাইল। সবশেষে অধিবাস।
পূর্ব নতুনপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটির আয়োজনে মহাঅষ্টমীতে অনুষ্ঠিত হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সন্ধ্যার পর অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করবেন।
অন্যান্য মন্ডপ
বাঁধনপাড়া সার্বজনীন পূজা কমিটির আয়োজনে মহাসপ্তমীতে রাত ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে ধর্মীয় আলোচনা। এরপর স্থানীয়দের অংশগ্রহণে রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
ধোপাখালী নবীনগর সার্বজনীন পূজা কমিটির আয়োজনে মহানবমীতে গীতা পাঠ, কেজাউড়া সার্বজনীন পূজা কমিটির আয়োজনে মহাষ্টমীর সন্ধ্যার পর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ওয়েজখালী সার্বজনীন পূজা কমিটির আয়োজনে মহাঅষ্টমীতে রাত সাড়ে ১০টায় কীর্ত্তন। কীর্ত্তন পরিবেশন করবেন জামালগঞ্জের মনোরঞ্জন সরকার। পিরোজপুর-জলিলপুর সার্বজনীন পূজা কমিটির আয়োজনে মহাষ্টমীর রাতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মল্লিকপুর কালী মন্দির পূজা কমিটির আয়োজনে মহানবমীতে রাত ১০টায় কীর্ত্তন, মধ্যবাজার সন্ধানী ক্লাব পূজা কমিটির আয়োজনে মহাষ্টমীতে রাত ৯টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
শহরের কিছু মন্ডপে শেষ মুহূর্তে অনুষ্ঠান সূচিতে যোজন-বিয়োজন হতে পারে বলে জানিয়েছেন কমিটির নেতৃবৃন্দ। এছাড়াও মন্ডপে মন্ডপে প্রতিদিনই মায়ের পায়ে অঞ্জলী প্রদান, চন্ডীপাঠ, প্রসাদ বিতরণ, আরতি সহ বিভিন্ন আচার অনুষ্ঠান পালিত হবে।
এবারে শহরে চিরাচরিত সাবেক রীতি মেনে পূজার পাশাপাশি মন্ডপগুলোতে রয়েছে সজ্জায় অভিনবত্ব। আবার কোথাও আলোকসজ্জায় নতুন চমক। এক কথায় রকমারি বৈচিত্রে ভরপুর প্রতিটি মন্ডপ। রবিবার পঞ্চমীতে বোধনের পর থেকেই শুরু হয়েছে পূজার আমেজ। সোমবার ষষ্ঠী থেকেই অনেকে বেরিয়ে পড়েছেন মন্ডপ থেকে মন্ডপে দেবী দর্শনে।