সামগ্রীসহ আটক ২ চোর

আমিনুল ইসলাম, তাহিরপুর
শনির হাওরে গৌরিপুর জমিদারী আমলের শতবর্ষ প্রাচীন খেওরের চুরি হওয়া লৌহ সামগ্রীসহ দু’জনকে আটক করেছে তাহিরপুর থানা পুলিশ। শুক্রবার সকালে খেওরের পাশ থেকে জামালগঞ্জ উপজেলার নয়াহালট গ্রামের আবু ইউসূফের ছেলে মেহেরুন ও চানপুরের মর্তূজ আলীর ছেলে সেলিম মিয়াকে আটক করে তাহিরপুর থানায় নিয়ে আসে এএসআই আলমাছ মিয়া ও সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা। এ ঘটনায় তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের চৌকিদার আবুবক্কর বাদী হয়ে সেলিম মিয়া ও মেহেরুনকে আসামী করে তাহিরপুর থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। খেওরটি(বর্তমানে স্লুইসগেট হিসাবে পরিচিত) বর্তমানে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। তাহিরপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনির হাওরে গৌরিপুর জমিদারী আমলের শতবর্ষ প্রাচীন খেওরের চুরি করে নিয়ে যাওয়া লৌহ সামগ্রী খেওরের পাশে মাটির নীচে পুঁতে রেখেছিল মেহেরুন ও সেলিম মিয়া। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে হাওরের বাঁধের কাজে নিয়োজিত এসকেভেটর দিয়ে খনন করে উঠানোর সময় শনির হাওরের পাহারাদাররা শব্দ শুনে খেওরের পাশে গিয়ে মেহেরুন ও সেলিম মিয়াকে আটক করে। এ সময় তাহিরপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন তাহিরপুর থানা পুলিশকে খবর দিলে শুক্রবার সকালে পুলিশ তাদের আটক করে তাহিরপুর থানায় নিয়ে আসে।
তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে আমি আমার জলমহাল শনির হাওরে ছিলাম। মধ্য রাতে খেওরের পাশে এসকেভেটরের শব্দ শুনে জলমহালের পাহারাদারদের ওখানে পাঠাই। মাটির নীচ থেকে লৌহসামগ্রী এসেকেভেটর দিয়ে উঠানো হচ্ছে এমন সংবাদ পেলে আমি ওদের আটক করে শুক্রবার সাকালে তাহিরপুর থানা পুলিশে সোপর্দ করি।
তাহিরপুর থানার ওসি মুহাম্মদ আতিকুর রহমান বলেন,এ ঘটনায় জড়িত মেহেরুন ও সেলিম মিয়াকে আসামী করে তাহিরপুর থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী বলেন,শনির হাওরে গৌরিপুর জমিদারী আমলের খেওরের চুরি করে নিয়ে যাওয়া লৌহ সামগ্রীসহ দু’জনকে আটক করেছে তাহিরপুর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে তাহিরপুর থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হবে।