সিলেটে বিএনপির গণসমাবেশ/ ষাটোর্ধ্বরা আগেই এসে অবস্থান নিলেন

বিশেষ প্রতিনিধি
সিলেটের আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির গণ-সমাবেশস্থলে বড়লেখা-জুড়ি’র ক্যাম্পে বসা বড়লেখার কাঠালতলির ৬৫ বছর বয়সি দিনমজুর আব্দুস সামাদের মন্তব্য দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির প্রতিবাদ জানাতে সিলেটে বিএনপির গণসমাবেশে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই এসে অবস্থান নিয়েছি।
কাঠালতলির এনাম উদ্দিন (৬৬) কৃষি কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। তিনি বিএনপির অঙ্গ সংগঠন কৃষকদলের কর্মী। বললেন, জিনিষপত্রের হকলতার দাম বাড়ে, কৃষিপণ্যের দাম বাড়ে না। সমাবেশে নেতারা এই বিষয়ে কি বক্তব্য দেন, শুনতে এসেছি।
মাঠের এক কোনে রয়েছে সিলেটের জকিগঞ্জ- কানাইঘাট বিএনপির ক্যাম্প। এই ক্যাম্পে বসা আবু বকর (৬০) এসেছেন উপজেলার ছতুল রায়পুর থেকে। আবু বকর জানালেন, তাদের ইউনিয়ন থেকে ৭০ জন ভোরেই চলে এসেছেন সিলেটে। দলের নেতারা জানিয়েছেন, বেলা বাড়লে পুলিশ আটকাবে, হয়রানি করবে। সিএনজি-লেগুনাও পাওয়া যাবে না। এজন্য ভোরেই রায়পুর থেকে ছতুল পর্যন্ত অটোরিক্সায় আসা। ছতুল থাকি দরবস লেগুনায়। দরবস থেকে খুব সকালে লেগুনায় পৌঁছেন সিলেট শহরের ছোবহানিঘাট। ওখান থেকে পায়ে হেঁটে আলিমা মাদ্রাসা মাঠে এসেছেন। তার সঙ্গে থাকা একই এলাকার কৃষক আবু জাফর (৬০) ও নূর উদ্দিন (৬০) এবং রাজমিস্ত্রী আব্দুস ছালাম বললেন, বাড়ি থেকে এমনভাবে বের হয়ে এসেছি, এক সপ্তাহ্ থাকা লাগলেও যাতে সমস্যা না হয়।
কানাইঘাটের এই বিএনপি কর্মীরা বললেন, ‘এলাকাত যুবলীগের নেতা সারের ডিলার, গেলেই কয় সার নাই। হে সার বেছিলায় ব্লেকে। আমরার ক্ষেত নষ্ট অইয়া যারগি, যাইবার যেগা পাই না, অখন দেওয়াল পিঠ লাগিগেছে, ইতার লাগি ইখানো আইছি কষ্ট কইরা প্রতিবাদ করতাম।
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের পাঠাবুকা থেকে বৃহস্পতিবার সকালে ট্রলারে রওয়ানা দিয়েছিলেন ছলিম উদ্দিন। বললেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে- রাইত (রাতে) ট্রলারেই খাইছি, শুক্রবার ভোরেই আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে পৌঁছাই। ওখানেই থাকবো রাতে। ছলিম উদ্দিন বললেন, অবস্থা খারাপ অইগেছে, প্রতিবাদ করা দরকার, নেতা অখলে আওয়ার ব্যবস্থা কইরা দিছইন দেইক্কা প্রতিবাদ করতাম আইছি। ৩০ টেকা কেজির গরিবের চাউল পর্যন্ত বেইচ্চা খায় তারা। ইতার প্রতিবাদ করার লায় ইখানো আইছি।
সুনামগঞ্জে দিরাই উপজেলা বিএনপির মহিলা সম্পাদিকা ছবি চৌধুরী (৫৫) জানালেন, ১৬ তারিখে সিলেটে এসেছেন তিনি। আত্মীয়ের বাসায় ওঠেছেন। প্রতিদিন সকালে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে আসেন বিকালে ফিরেন। বললেন, ‘রাইতের ভোট ঠেকানির আন্দোলনে যোগ দেবার জন্য এসেছি।’
শুক্রবার বিকালে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, ক্ষণে ক্ষণে আসা মিছিলে তরুণরাই বেশি। বয়স্করা ভোরেই এসে মাঠে অবস্থান নিয়েছেন। বয়স্করা দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতেই ক্ষুব্ধ বেশি।
পাল্টা সমাবেশ করছে না আ.লীগ
সিলেটে শুক্রবার প্রচার ছিল বিএনপির গণ-সমাবেশ পরবর্তী পাল্টা সমাবেশ করতে পারে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের নেতারা জানিয়েছেন, এ ধরণের কোন কর্মসূচির চিন্তা আপাতত নেই তাদের।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাড. নাসির উদ্দিন খান বললেন, আওয়ামী লীগের যে কোন সময় লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতিতে সমাবেশ করার শক্তি আছে। বিএনপি গণসমাবেশ করেছে, এজন্য আমাদেরও করতে হবে এমনটা আমাদের ভাবনায় নেই। সামনে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন। দলীয় সভানেত্রীর জাপান সফরও আছে। এই অবস্থায় জানুয়ারিতে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে আমাদের গণ-সমাবেশ হতে পারে। তবে এখনো এই বিষয়ে কোন নির্দেশনা পাওয়া যায় নি।