সীমিত পরিসরে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন

স্টাফ রিপোর্টার
এবার উদযাপিত হচ্ছে সম্পূর্ণ ভিন্ন প্রেক্ষাপটে। বিশ্বের আরও অনেক দেশের মতো এ দেশের জনগণও এখন মরণপণ যুদ্ধ করে চলেছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে। করোনাভাইরাসজনিত উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এবার সীমিতভাবে স্বাধীনতা দিবসের কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।
তবে করোনাভাইরাসজনিত পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যগত গণঝুঁকি এড়াতে শহীদ মিনার ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানোসহ সব কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে। আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোও স্বাধীনতা দিবসের সব কর্মসূচি বাতিল করেছে। আজ বৃহস্পতিবার থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারাদেশে গণছুটি ও যোগাযোগ পরিবহনে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। সংগনিরোধ নিশ্চিত করতে ও বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা দিতে নামানো হয়েছে সেনা সদস্যদের।
অত্যন্ত সীমিত পরিসরে সকাল ৮টায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ। ৃেপৗর শহরের সুনামগঞ্জ ঐতিহ্য জাদুঘর প্রাঙ্গণে রেকর্ডকৃত জাতীয় সংগীত পরিবেশনের সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন তিনি। এর আগে প্রত্যুষে ২১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে স্বাধীনতা দিবসের সূচনা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহামন (বিপিএম), সুনামগঞ্জ স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক), মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সুহেল মাহমুদ, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়াসমিন নাহার রুমা, এবং সুনামগঞ্জ কালেক্টরেট এর কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ।
দুপুরে বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সীমিত পরিসরে দোয়া ও প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও এতিমখানা, জেলা খানা, শিশু পরিবারে যথারীতি উন্নত খাবার পরিবেশন করা হয়েছে।
তবে এবার আনুষ্ঠানিকভাবে বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ ও শহীদ পরিবারকে কোনো সম্মাননা জানানো হয়নি। পরবর্তীতে নির্দেশনা পাওয়ার পর তাদের নিকট শুভেচ্ছা উপহার পৌঁছে দেয়া হবে বলে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন তাঁর হাসননগরের বাসভবনে অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করে স্বাধীনতা দিবসের শ্রদ্ধাঞ্জলী প্রদান করেন।