সুনামগঞ্জে ২৩ দফা দাবিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে কমিউনিস্ট পার্টির স্মারকলিপি

স্টাফ রিপোর্টার
করোনা রোগীর চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে হয়রাণিমূলক কারণ দর্শানোর নোটিশ-বদলির আদেশ প্রত্যাহার, চিকিৎসক, নার্স, টেকনোলজিস্ট, ক্লিনার, নিরাপত্তাকমর্সিহ ঝূকিপুর্ণ কাজে নিয়োজিত কর্মীদের জন্য মান সম্মত পি্িপই, এন ৯৫ মাস্ক ও অন্যান্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান, জনগণকে বিনামূল্যে/সুলভ মূল্যে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার প্রদানসহ ২৩ দফা দাবিতে সুনামগঞ্জে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে কমিউনিস্ট পার্টি সুনামগঞ্জ জেলা শাখা। পরে করোনা চিকিসৎসার নানাবিদ সংকট নিরসনের দাবিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে একই দাবিতে মানববন্ধন করে সংগঠনটি।
সুনামগঞ্জ সিভিল সার্জনের মাধ্যমে সোমবার দুপুরে কমিউনিস্ট পার্টির জেলা সভাপতি অধ্যাপক চিত্তরঞ্জন তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এনাম আহমেদের নেতৃত্বে কমিউনিস্ট পার্টির নেতাকর্মীরা এই স্মারকলিপি প্রদান করেন। সুনামগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিন কমিউনিস্ট পার্টির স্মারকলিপিটি গ্রহণ করেছেন।
স্মারকলিপিতে করোনা মোকাবেলায় সব সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক ও প্রতিষ্ঠানকে চিকিৎসার জন্য নির্দিষ্ট হাসপাতালগুলোতে সম্পৃক্তকরণ, প্রয়োজনে কেন্দ্রীয়ভাবে চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যসেবীদের টিম তৈরি করে চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সমন্বয় সাধন করার দাবি জানানো হয়েছে। তাছাড়া স্মারকলিপিতে প্রতি জেলায় করোনা টেস্ট ল্যাব স্থাপন, প্রতি উপজেলায় করোনা স্যাম্পল সংগ্রহ কেন্দ্র স্থাপনের কথাও বলা হয়।
এদিকে স্মারকলিপি পরবর্তী মানববন্ধন কর্মসুচিতে বক্তব্য দেন, জেলা কমিটির সভাপতি কমরেড চিত্তরঞ্জন তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এনাম আহমেদ, কৃষক সমিতির সুনামগঞ্জ জেলার যুগ্ম আহ্বায়ক ও দিরাই কলেজের সাবেক ভিপি নিরঞ্জন দাস খোকন প্রমুখ।
সুনামগঞ্জ কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি অধ্যাপক চিত্তরঞ্জন তালুকদার বলেন, আমরা জনগণের পক্ষে ২৩ দফা দাবিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছি। মহামারি করোনাকে উপেক্ষা করার আর সুযোগ নেই। কারণ এই রোগের সামাজিক ট্রান্সমিশন ঘটে গেছে। এখন কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া না হলে অবস্থায় ভয়াবহ হবে।