সুনামগঞ্জ আ.লীগের হাজারো নেতাকর্মী রাজধানীমুখী

বিশেষ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের ১১ উপজেলার আওয়ামী লীগের সক্রিয় নেতা-কর্মীরা রাজধানীমুখী। তবে হতাশ হয়ে ফিরতে হবে অনেককেই। সম্মেলনের কোন অধিবেশনেই অংশ নিতে পারবেন না বেশিরভাগ নেতা-কর্মী। এরপরও দলীয় নেতা-কর্মীদের বেশিরভাগই ঢাকাগামী। জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল নেতারা জানিয়েছেন, জেলার ১৪ সাংগঠনিক ইউনিট থেকে ১১৪ জন সংগঠক আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে কাউন্সিলর হিসাবে থাকবেন। ডেলিগেট (প্রতিনিধি) হবেন ২২৮ জন।
বৃহস্পতিবার পরিবহনের টিকেট কিংবা ঢাকায় গিয়ে হোটেলে রুম পাওয়া যাবে কী-না এই চিন্তায় মঙ্গল ও বুধবারই রাজধানী ঢাকায় চলে গেছেন বেশিরভাগ নেতা কর্মী।
প্রায় ২৫ লাখ জন অধ্যুষিত সুনামগঞ্জের ১৪ ইউনিটেই আওয়ামী লীগের শক্তিশালী সংগঠন রয়েছে। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি এবার ২৫ হাজার জনসংখ্যার জন্য কাউন্সিলর করেছে ১ জন এবং ডেলিগেট করেছে ২ জন। দলীয় একাধিক নেতা জানিয়েছেন, জেলা, উপজেলা ও পৌরসভার সহ¯্রাধিক নেতা-কর্মী ইতিমধ্যে ঢাকায় পৌঁছেছেন। আগামীকাল আরও অনেকে যাবেন।
জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তরবিহীন সম্পাদক অ্যাডভোকেট নূরে আলম সিদ্দিকী উজ্জ্বল বুধবার বিকাল ৩ টায় জানালেন, তারা ঢাকার পথে রয়েছেন। সুনামগঞ্জ থেকে তার জানা মতে এক হাজারেরও বেশি নেতা-কর্মী ঢাকায় পৌঁছেছেন। আরও অনেকেই পথে আছেন।
জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ইশতিয়াক শামীম জানান, জেলার জগন্নাথপুর, ছাতক, সুনামগঞ্জ সদরসহ বিভিন্ন উপজেলায় যারা যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশে থেকে সংগঠনের জন্য কাজ করছেন, তাঁরাও সংগঠনের কাউন্সিলে অংশ নিতে দেশে এসেছেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান জানালেন, ২৫ হাজারে ১ জন কাউন্সিলর ও ২ জন ডেলিগেট পাওয়া যাবে। আমরা চেষ্টা করবো দলের ত্যাগীরা যাতে কাউন্সিলে অংশ নিতে পারেন সেভাবে ব্যবস্থা নিতে। তবে সংখ্যায় কাউন্সিলর ও ডেলিগেট কম থাকায় ইচ্ছা থাকার পরেও অনেককেই ঢুকানো সম্ভব হবে না।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন জানালেন, সুনামগঞ্জের ১১ উপজেলায় ১১৪ জন কাউন্সিলর পাওয়া গেছে। ডেলিগেট ২২৮ জনের মতো পাওয়ার কথা। এরমধ্যে জেলা কার্যনির্বাহী কমিটির ৭৫ জন সদস্যই কাউন্সিলর হবেন। ১৪ ইউনিটের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর হবেন। বাকী ১১ জনের মধ্যে জনসংখ্যা যেসব উপজেলায় বেশি, সেখানকার দলীয় নেতাদের কাউন্সিলর রাখার চেষ্টা করা হবে।
উল্লেখ্য, দেশের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২১ তম জাতীয় সম্মেলন আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।