সেচ প্রকল্পে বিদ্যুৎ সংযোগে প্রভাবশালীদের বাধা/চাঁদা দাবির অভিযোগ

ছাতক প্রতিনিধি
ছাতকে সেচ প্রকল্পে বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে প্রভাবশালীদের মোটা অংকের অর্থ দাবির অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদের দাবিকৃত অর্থ দিতে না পারায় বিদ্যুৎ লাইন টানতে বাধা প্রদান করে চলমান কাজ বন্ধ করে দেয় তারা। ফলে পল্লী বিদ্যুতের লোকজন কাজ ফেলে বিদ্যুৎ সরঞ্জাম নিয়ে চলে যেতে বাধ্য হয়। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলা ইসলামপুর ইউনিয়নের গাংপাড় নোয়াকুট গ্রামে।
এ ঘটনায় ছনবাড়ি বাজার কৃষি সেচ প্রকল্পের লাইসেন্স প্রাপ্ত গাংপাড় নোয়াকুট গ্রামের আপ্তাবুজ্জামানের ছোটভাই মনিরুজ্জামান সোমবার একই গ্রামের মখলিছুর রহমান, রফিক মিয়া, করম আলী, হুছন আহমদ ও রিপন আহমদের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ (স্মারক নং ৯২২) দেন। এর প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূরেরজামান চৌধুরী আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ছাতক থানার অফিসার ইনচার্জকে বলেন।
অভিযোগ থেকে জানা যায়, গাংপাড় নোয়াকুট এলাকার প্রায় ২০০ একর জমিকে বোরো ফসলের আওতায় আনতে সরকার সোনাই নদীর উপর প্রায় ২ কোটি টাকা ব্যয়ে রাবার ড্যাম প্রকল্প বাস্তবায়ন করে। রাবার ড্যামের মাধ্যমে মজুতকৃত পানি বোরো মৌসুমে সেচের কাজে ব্যবহার করা হয়। এ ক্ষেত্রে ছনবাড়িবাজার কৃষি সেচ প্রকল্প নামে লাইসেন্স দিয়ে থাকে সরকারিভাবে। বর্তমানে বৈধভাবে লাইসেন্স গ্রহণ করে আপ্তবুজ্জামান গভীর নলকূপের মাধ্যমে এলাকার বোরো জমিতে পানি সেচের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। এ লক্ষে ১১ নভেম্বর তার নিজস্ব ভূমিতে পল্লী বিদ্যুতের খঁুটি স্থাপন করেন। খঁুটি স্থাপন করতে তার নিজের ভূমিতে লাগানো প্রায় দেড় লক্ষ টাকা মূল্যে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কাটতে করতে হয়েছে। সঞ্চালন লাইন টানার সময় প্রতিপক্ষরা বাধা হয়ে দাঁড়ায়। তারা আপ্তাবুজ্জামানের কাছে অনৈতিকভাবে মোটা অংকের অর্থ দাবি করেছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। এসময় বিদ্যুৎ কর্মীদের কাজ বন্ধ রাখতে হুমকি—ধামকি প্রদর্শন করে প্রতিপক্ষরা। এক পর্যায়ে বিদ্যুৎ শ্রমিকরা ভয়ে কাজ ফেলে মালামাল নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।