সৌদিতে যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার ১

স্টাফ রিপোর্টার
দালালের মাধ্যমে সৌদি আরবে গিয়ে খাদ্য ও চিকিৎসার অভাবে যুবকের মৃত্যুর ঘটনায় এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিহত মো. আকবর বিশ্বম্ভপুর উপজেলার দক্ষিণ বাধাঘাট ইউনিয়নের সিরাজপুর গ্রামের আব্দুল মোতালিবের ছেলে। গ্রেফতারকৃত আসামী একই গ্রামের জালাল উদ্দিনের স্ত্রী মোছা. রাজিয়া খাতুন।
বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) রাত ২টার দিকে বিশ্বম্ভরপুর থানা পুলিশের অভিযানে নিজ বসত ঘর থেকে রাজিয়া খাতুন কে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার (১১ নভেম্বর) বিকালে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইশরাত জাহানের আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন।
সত্যতা নিশ্চিত করে পুলিশের আদালত পরিদর্শক বুরহান উদ্দিন বলেন, প্রতারণা করে সৌদি নিয়ে যুবকের মৃত্যুর মামলায় আসামী রাজিয়াকে আদালতে হাজির করা হয়। আদালত জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আলীম উদ্দিন বলেন, অভিযান পরিচালনা করে একজন আসামী গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। আরেক আসামী প্রবাসে। বাকি আসামিরা পলাতক আছে, তাদের ধরতে চেষ্টা অব্যাহত আছে।
প্রসঙ্গত, গত মার্চ মাসে কোম্পানির কাজের কথা বলে ট্যুরিস্ট ভিসায় ৪ লক্ষ করে টাকার বিনিময়ে একই গ্রামের ৪ যুবককে সৌদি নেয় একই গ্রামের জালাল উদ্দিন ও রাজিয়া খাতুনের ছেলে শহিদ। ৩ মাস পর সেখানে তারা অবৈধ হয়ে যান। কাজ দিতে না পেরে তাদেরকে মরুভূমিতে নিয়ে রাখা হয়। সেখানে শনিবার (৫ নভেম্বর) অনাহারে, বিনা চিকিৎসায় আকবরের মৃত্যু হয়। মানসিক যন্ত্রণায় ভোগছেন আটকে থাকা আরও ৩ যুবকের বাবা-মা। পরে এই ঘটনায় থানায় মামলা করেন আকবরের বড় ভাই আব্দুস সালাম।