স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না প্রবাসীরা

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জে স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না বিভিন্ন দেশ থেকে ফেরা বাংলাদেশী নাগরিকরা। এ কারণে জেলাজুড়ে করোনার ঝুঁকি বেড়েছে। গত পহেলা মার্চ থেকে জেলায় যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ইতালী, ফ্রান্স, সৌদিআরব, উমানসহ বিভিন্ন দেশ থেকে আসা দুই হাজার দুই’শ ২৮ জন প্রবাসী দেশে ফিরলেও হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন মাত্র ৪৩ জন। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এই বিষয়ে করণীয় নির্ধারণ সংক্রান্ত জরুরি সভায় প্রবাসীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আনার জন্য মন্ত্রণালয়ে জরুরিভাবে প্রস্তাবনা পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিরোধী দলীয় হুইপ পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ্ এমপি, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. শামছুদ্দিন, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখ্ত, সুনামগঞ্জ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ আলী খুশনুর, সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক এনামুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় জানানো হয়, পহেলা মার্চ থেকে ১৭ মার্চ পর্যন্ত জেলার ১১ উপজেলা ও এক থানা এলাকায় ২২৮৮ জন প্রবাসী দেশে ফিরেছেন। এরমধ্যে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় এসেছেন ৪৩৯, বিশ^ম্ভরপুরে ৫৩, ছাতকে ৫৮৭, দোয়ারাবাজারে ২১৬, জগন্নাথপুরে ৫১২, দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ২৫, দিরাইয়ে ১৭৯, শাল্লায় ২১, তাহিরপুরে ৪৪, জামালগঞ্জে ৭৯, ধর্মপাশায় ৫৫ ও মধ্যনগরে ১৩ জন দেশে ফিরেছেন। অন্যান্য জেলার ৬৫ জন প্রবাসী সুনামগঞ্জ জেলায় অবস্থান করছেন।
সভায় সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ্ তাঁর বক্তব্যে বলেন, এই জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনের নির্দেশনা কাজে আসছে না। লাখ লাখ মানুষের ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে প্রবাসীদের কারণে।
তিনি বিদেশ ফেরৎ সকলকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আনার জন্য মন্ত্রণালয়ে নির্দেশনা চেয়ে প্রস্তাব পাঠানোর কথা উল্লেখ করেন। পরে এই প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হয়।
পরে সভার সভাপতি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ জানান, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজই (বৃহস্পতিবারই) তারা প্রবাসীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আনতে প্রতি উপজেলায় একটি এবং অধিক প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকায় একাধিক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন খোলার নির্দেশনা চেয়ে মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠাবেন।
সভায় জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ, ব্যবসায়ী ও চেম্বার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় করোনা’র কথা বলে দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়ালে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। এই বিষয়ে ব্যবসায়ী ও চেম্বার নেতৃবৃন্দের সহযোগিতাও চাওয়া হয়।