সড়ক আন্দোলনে একটি মহল ফায়দা হাসিলে ব্যস্ত ছিল -মানিক

ছাতক প্রতিনিধি
ছাতকে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকরণ সংক্রান্ত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক বলেছেন, ‘আমাদের দেশে সড়কগুলোতে গাড়ি চলাচলের বাইরে আরো বহুবিধ কাজে ব্যবহার করা হয়। যা বিশ্বের অন্য কোন দেশেই হয় না। সড়কের পাশ দখল করে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা, সড়কের উপর বাজার, গোচারণ, সভা-সমাবেশ, ধান-খড় শুকানোসহ বিভিন্ন কাজে সড়ক ব্যবহার করা হচ্ছে। এ বিষয়গুলোও দুর্ঘটনার জন্য দায়ী। নিরাপদ সড়ক চাই নামে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে ঘিরে একটি মহল রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছিল। শিক্ষার্থীদের উস্কানী দিয়ে আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল এ মহল। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতেই পুলিশ বাধ্য হয়ে আইনী ব্যবস্থা নিয়েছে।’
তিনি বলেন নিরাপদ সড়ক সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের কাম্য। সড়কে ফিটনেস গাড়ি, দক্ষ চালক এবং সড়ক ও ট্রাফিক আইন যথাযথ পালন করলেই সড়ক দুর্ঘটনা অনেকটাই লাঘব করা সম্ভব হবে।
সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ককে আঞ্চলিক মহাসড়কে উন্নীত করতে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা ও অর্থ বরাদ্দের কথা উল্লেখ করে এমপি মানিক বলেন, সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের বিভিন্ন অংশ জাতীয় মহাসড়কে উন্নীত করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ছাতক-গোবিন্দগঞ্জ সড়কের ঝুকিপূর্ণ সবগুলো ব্রীজ নতুন করে নির্মাণের প্রস্তাব সম্প্রতি একনেকের এক বৈঠকে পাশ হয়েছে।
মঙ্গলবার সকালে উপজেলা মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবেদা আফসারীর সভাপতিত্বে ও সমবায় কর্মকর্তা বিজিত রঞ্জন করের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকরণ সংক্রান্ত বিষয়ে মূল বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সোনিয়া সুলতানা, অধ্যক্ষ মঈন উদ্দিন আহমদ, সহকারী পুলিশ সুপার দুলন মিয়া, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহিদ মজনু, ডাঃ রাজিব চক্রবর্ত্তী, আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ আহমদ, প্রেসক্লাবের সভাপতি সৈয়দ হারুন-অর রশীদ, ইউপি চেয়ারম্যান গয়াছ আহমদ প্রমুখ।