১ শিক্ষকে চলছে স্কুল

আলী আহমদ, জগন্নাথপুর
জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের কালাম্বরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান চলছে একজন শিক্ষক দিয়ে। এছাড়া ওই বিদ্যালয়ে একজন সহকারি শিক্ষক ছুটি না নিয়ে অনুপস্থিত রয়েছেন র্দীঘদিন ধরে।
স্থানীয় ও বিদ্যালয় সূত্র জানায়, কালাম্বরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪টি পদের মধ্যে ২টি পদ শূন্য রয়েছে। এরমধ্যে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে ছুটি না নিয়ে দীর্ঘ ৮ আট ধরে অনুপস্থিত রয়েছেন বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রেজাউল করিম। গত ৬ মাস ধরে বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক (চ.দা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক) শীতলা রানী সুত্রধর দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি গত বছরের অক্টোবর মাসে বিদ্যালয়ে যোগদান করলে ওই সময় বিদ্যালয়ের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনকারী সহকারি শিক্ষক আরজু মিয়া তাঁর নিজ কর্মস্থলে চলে যান। এরপর থেকে একাই বিদ্যালয়ের ১৩৫ জন শিক্ষার্থীর পাঠদান দিয়ে আসছেন সহকারী শিক্ষক শীতলা রানী সুত্রধর। বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকটের কারণে পাঠদান চরমভাবে বিঘিœত হচ্ছে।
বিদ্যালয় পরিচালনায় কমিটির সভাপতি মাসুম আহমদ বলেন, ‘বিদ্যালয়ে তীব্র শিক্ষক সংকট চলছে। প্রায় ৬ মাস ধরে একজন শিক্ষক দ্বারা চলছে শিক্ষা কার্যক্রম। বার বার কর্তৃপক্ষকে শিক্ষক পদায়নের জন্য দাবি জানিয়ে আসলেও দাবিটি উপেক্ষিত রয়েছে।’
বিদ্যালয়ের অনুপস্থিত থাকা শিক্ষক রেজাউল করিমের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি মেডিকেল ছুটিতে রয়েছিঅ
ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শীতলা রানী সুত্রধর বলেন, একজন শিক্ষক দিয়ে একটি বিদ্যালয় পরিচালনা খুবই কষ্টের। একরকম দৌঁড়ে দৌঁড়েই ক্লাস নিতে হয়। এরমধ্যে দাপ্তরিক কাজে উপজেলা সদরে গেলে পড়াশুনা বিঘিœত হয়।
জগন্নাথপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন বলেন, ছুটি না নিয়ে বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রেজাউল করিম চলে গেছেন। তাঁর বেতন উত্তোলন বন্ধ করে রাখা হয়েছে। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি আমরা।