২য় দফা ছাতক-সিলেট রেললাইন পরিদর্শনে এডিবি’র প্রতিনিধি দল

ছাতক প্রতিনিধি
ছাতক-সিলেট রেল লাইন পুনঃসচলের কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ছাতকে ২য় দফা পরিদর্শনে আসেন দুই সদস্য বিশিষ্ট এডিবি’র একটি প্রতিনিধি দল।
রবিবার সন্ধ্যায় ছাতক রেলওয়ে স্টেশনে এ সংক্রান্ত বিষয়ে জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী ও সুধীজনদের সাথে মতবিনিময় করেন প্রতিনিধি দলের এডিবি’র পরিবেশ বিষয়ক কনসালডেন্ট জুবায়ের আরেফিরন ও এডিবি’র সোসাল ডেভলাপমেন্ট এন্ড জেন্ডার এক্সপার্ট শাওন দেওয়ান।
মতবিনিময়ে অংশ নেন ছাতক উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান, ছাতক পৌরসভার সাবেক মেয়র আব্দুল ওয়াহিদ মজনু, ছাতক প্রেসক্লাবের সভাপতি সৈয়দ হারুন-অর রশীদ, ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামছু মিয়া, ছাতক প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম, সাংস্কৃতিক সংগঠক তপন তরফদার, ছাতক প্রেসক্লাবের অর্থ সম্পাদক বিজয় রায়, আওয়ামী লীগ নেতা আনিসুর রহমান চৌধুরী সুমন, সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম আজির, আওয়ামী লীগ নেতা নজমুল হোসেন, যুবলীগ নেতা সাদমান মাহমুদ সানি, ব্যবসায়ী বাতির আলী, ছাত্রলীগ নেতা আতিকুর রহমান রিয়াদ, ব্যবসায়ী নিয়াজ আহমদ, ছাতক রেলওয়ের মহাব্বত আলী, শওকত আলী, সুহেল আহমদ, আরিফ আহমদ, আবু বক্কর সিদ্দীক, দিলোয়ার হোসেন প্রমুখ।
এসময় রাজনৈতিক, সামজিক ও পেশাজীবী লোকজন উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে ১৩ নভেম্বর ছাতক-সিলেট রেল লাইন পরিদর্শনে আসা রেলওয়ের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ার হোসাইন, রেলওয়ের উর্ধ্বতন সহকারী প্রকৌশলী জুয়েল হোসেন, উর্ধ্বতন সহকারী প্রকৌশলী জুলহাস মাহমুদ, সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী জুবায়ের আহমদ সর্দার ও এডিবি’র কনসালডেন্ট রাকিবুল ইসলাম সমন্বয়ে একটি প্রতিদিনধ দল সিলেট-ছাতক রেল লাইন আধুনিকায়ন করার গৃহীত পরিকল্পনার কথা বলেছিলেন। সব ঠিকঠাক থাকলে ২০২৩ সালের জুন-জুলাই মাসের মধ্যে ছাতক—সিলেট রেল লাইন আধুনিকায়নের কাজ শুরু হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছিলেন প্রতিনিধি দলের প্রধান সিলেট-শায়েস্তাগঞ্জ রেল লাইনের দায়িত্বে থাকা সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ার হোসাইন। সিলেট-ছাতক রেল লাইন আধুনিকায়ন এবং সুনামগঞ্জ পর্যন্ত বর্ধিতশরনে ২শ’ ২২কোটি টাকার নুতন প্রকল্প মন্ত্রনালয়ে প্রেরন করা হয়েছে বলেও তিনি বলেছিলেন।
রবিবার ২য় দফা পরিদর্শনে আসা এডিবি’র প্রতিনিধি দল রেল লাইন ছাড়াও সাম্প্রতিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন।