২৯ অক্টোবর খুলবে জেলার দক্ষিণের দুয়ার/রানীগঞ্জ সেতুর উদ্ধোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি
খুলছে সুনামগঞ্জের দক্ষিণের দুয়ার। আগামী ২৯ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেট বিভাগের সবচেয়ে বড় কুশিয়ারা সেতু উদ্বোধন করার মধ্য দিয়ে ২৫ লাখ সুনামগঞ্জবাসীর দক্ষিণের দুয়ার খুলবে। জেলার দক্ষিণের উপজেলা জগন্নাথপুরের রানীগঞ্জে কুশিয়ারা নদীর উপর ১৫৫ কোটি টাকা ব্যয়ে এই সেতু নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হলেই চলবে পরিবহন।
সুনামগঞ্জবাসীর বহুদিনের দাবি ছিল রানীগঞ্জে কুশিয়ারা নদীর উপর সেতু নির্মাণের। ২০১৬ সালের শুরুতেই বর্তমান পরিকল্পনা মন্ত্রী (তৎকালীন অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রী) এমএ মান্নানের চেষ্টায় কুশিয়ারা সেতু নির্মাণে কাগজে-ফাইলে প্রক্রিয়া শুরু হয়। দরপত্র প্রক্রিয়া শেষে ২০১৬ সালের আগস্ট মাসে কার্যাদেশ পায় রাজধানীর জন-জেবি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ২০১৭ সালের ১৪ জানুয়ারি দীর্ঘ এই সেতুর নির্মাণ কাজ যৌথভাবে উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি এবং তৎকালীন অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএম মান্নান এমপি। সেই থেকে স্বপ্নদেখা শুরু ২৫ লাখ সুনামগঞ্জবাসীর।
ইতিপূর্বে শান্তিগঞ্জের ডাবর থেকে জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-ইনাতগঞ্জ হয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সৈয়দপুর পর্যন্ত নির্মিত হয়েছে ৪৬ কিলোমিটার আঞ্চলিক মহাসড়ক। রানীগঞ্জের ফেরী পার হয়ে এই পথে তিন বছর হয় যান চলাচলও শুরু হয়েছে।
সেতু না থাকায় এই পথে গণপরিবহন বা পণ্য পরিবহন হচ্ছে সীমিত আকারে। ২৯ অক্টোবর থেকে এই পথই হবে সুনামগঞ্জ থেকে রাজধানী ঢাকার যোগাযোগ পথ। এ পথ দিয়েই চলবে সুনামগঞ্জ থেকে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের যোগাযোগ রক্ষাকারী গণ ও পণ্য পরিবহন। স্থানীয়রা বললেন, সেতু চালু হবার পর রাজধানীর সঙ্গে সুনামগঞ্জের দূরত্ব কমবে ৫২ কিলোমিটার। একইসঙ্গে ঢাকাসহ রাজধানীতে যাতায়াতে ভিড় ঠেলতে হবে না সুনামগঞ্জবাসীকে।
জগন্নাথপুরের বাসিন্দা মির্জা আবু তাহের বললেন, সুনামগঞ্জ জেলা সদর, শান্তিগঞ্জ-জগন্নাথপুর, বিশ^ম্ভরপুর, তাহিরপুর, দিরাই ও জামালগঞ্জসহ পুরো জেলাবাসী সিলেট হয়ে রাজধানীতে যাবার সময় হা-পিত্যেশ করতেন। এখন সেই যন্ত্রণা কমবে। ৫২ কিলোমিটার দূরত্ব কমা কেবল নয়, যানজট ঠেলে রাজধানীতে যেতে তিন ঘণ্টা সময় বেশি লাগতো। এই ভোগান্তিও শেষ হবে।
জগন্নাথপুরের গণমাধ্যমকর্মী অমিত দেব বললেন, সেতু ও আঞ্চলিক সড়ক (ডাবর- সৈয়দপুর সড়ক) বদলে দেবে সুনামগঞ্জকে। জগন্নাথপুরের প্রবাসীরা এখন আর সিলেট এয়ারপোর্ট ব্যবহার না করলেও চলবে, ঢাকায় নেমেইে গাড়ি নিয়ে বাড়ি আসতে পারবেন।
জগন্নাথপুরের কলকলিয়া এলাকার কৃষক এরশাদ আলী বললেন, জগন্নাথপুরসহ সুনামগঞ্জ, বিশ^ম্ভরপুর, তাহিরপুর, জামালগঞ্জ ও দিরাইয়ের কৃষিপণ্য কম সময়ে রাজধানীতে পৌঁছানো যাবে। একদিনে কাজ শেষ করে ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরা যাবে।
সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম প্রাং বললেন, সিলেট বিভাগের সবচেয়ে দীর্ঘ রানীগঞ্জের কুশিয়ারা সেতু। ৭০২ মিটার দীর্ঘ এই সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ। এখন উদ্বোধনের সাজ-সজ্জার কাজ চলছে। সেতু ও আড়াই কিলোমিটার সড়ক এবং টুল প্লাজাসহ ব্যয় হয়েছে ১৫৫ কোটি টাকা। আগামী ২৯ অক্টোবর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের ১১৬ সেতু যান চলাচলের জন্য উদ্বোধন করবেন। এরমধ্যে সবচেয়ে বৃহত্তম রানীগঞ্জ সেতু। তিনি জানান, প্রথম তিনমাস এখানে টুল আদায় করবে জন জেবি নামের সেতু’র ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।