৬ শতাধিক নেতাকর্মীকে গুম করা হয়েছে- মিলন

স্টাফ রিপোর্টার
এই আন্দোলন বাংলাদেশের জনগণের। আন্দোলন করতে গিয়ে জননেতা এম ইলিয়াস আলী সহ ৬ শতাধিক নেতাকর্মীকে গুম করা হয়েছে। হাজার হাজার নেতাকমীর্কে খুন করা হয়েছে, পঙ্গু করা হয়েছে। ২৫ লক্ষের উপর নেতাকমীর্ আজ আমরা মামলায় আবদ্ধ, বাড়িতে থাকতে পারি না।
শনিবার দুপুরে সিলেটের ঐতিহাসিক সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে সাবেক সংসদ সদস্য, কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, এমন একটি পরিস্থিতির সৃষ্টি করা হয়েছে— দুঃশাসন আরও বেশীদিন চালিয়ে যাওয়ার জন্য। ইনশাল্লাহ এই দুঃশাসন বেশী দিন চালিয়ে যেতে দেয়া হবে না। সারা বাংলাদেশের মানুষ আজ বিক্ষুব্ধ। ফুঁসে উঠা লাখ লাখ জনগণ আজকে আমাদের মহাসমাবেশগুলোতে সম্পৃক্ত হচ্ছে। সুতরাং আমরা সিলেটবাসী এটাই বলতে চাই, আগামী দিনের আন্দোলনে আমরা সক্রিয় থাকবো। এটি আরেক মুক্তিযুদ্ধ।
তিনি বলেন, দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির কারণ, গ্যাস তেলের দাম বৃদ্ধির কারণ, বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির কারণ নিয়ে আরও বলবেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। আমরা চাই অবিলম্বে দ্রব্যমূল্যের দাম কমানো হোক এবং নির্দরীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বাচনের দাবি মেনে নিতে হবে।
প্রসঙ্গত, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির ও নেতা—কর্মীদের হত্যার প্রতিবাদ, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন এবং খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিএনপির এ গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। গণসমাবেশ শুরু হয় বেলা ১১টায়।