আগামী মাসে সংকট থাকবে না- পরিকল্পনামন্ত্রী

ইয়াকুব শাহরিয়ার, শান্তিগঞ্জ
পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, লোডশেডিংটা অপ্রত্যাশিত ভাবে আমাদের সামনে এসেছে। কারণ বিশ্বজুড়ে গণ্ডগোল। আমাদের নিজস্ব তেল-গ্যাস নাই, তেল-গ্যাস পুড়িয়ে বিদ্যুত বানাতে হয়। এজন্য হঠাৎ টান পড়ে গেছে। তাই কয়েকটা দিন আমাদেরকে সমন্বয় করতে হবে। বিদ্যুতের ব্যবহারে জনসাধারণকেও মিতব্যয়ী হতে হবে। বেশি লাইট থাকলে জরুরিটা বাদে বাকীগুলো বন্ধ রাখতে হবে। ফ্যান অযথা না চালানো ভালো। সরকারকে সহযোগিতা করতে হবে। আমাদের কিছু ঘাটতি আছে আমরা স্বীকার করি। আগস্ট মাসের শেষের দিকে ধীরে ধীরে এ সমস্যার ইমপ্রুভ হবে। আমার বিশ্বাস, আগামী মাসে এ সংকট আর থাকবে না। কয়েকটা দিন সহ্য করেন। কোনো উস্কানিমূলক কথাবার্তায় কান দিবেন না। সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।
বুধবার বিকাল ৫টায় শান্তিগঞ্জ উপজেলার পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজ মাঠে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ও বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ান ও রানার্সআপ দলের হাতে পুরষ্কার তুলে দেওয়ার সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
মন্ত্র বলেন, বন্যার কারণে যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ক্রমান্বয়ে সবগুলোর সংস্কার করা হবে তবে সময় লাগবে। সরকারের সবদিকে নজর আছে। সকলের জন্য যেসব কাজ সর্বাগ্রে জরুরি সেগুলোকে আমাদের সরকার মেরামত করবে। সময় দিতে হবে, ধৈর্য্য ধরতে হবে। কাজ করার সুযোগ দিতে হবে। বিশৃঙ্খলা করা যাবে না। সমাজে শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষা করতে হবে। সমাজে যদি কোনো গণ্ডগোল থাকে তাহলে কোনো কাজ করা যাবে না।
ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, লেখাপড়া করতে হবে, পাশাপাশি খেলাধুলাও করতে হবে। যদি শুধু লেখাপড়া করো তাহলো মেজাজ খিটখিটে হয়ে যাবে আবার শুধু খেলাধুলা করলেও ক্ষতি। তাই সমন্বয় করে লেখাপড়া আর খেলাধুলা দু’টিই চালিয়ে নিতে হবে। তবে অবশ্যই লেখাপড়াতে প্রাধান্য দিতে হবে। আজকে যারা এখানো আমার কথা শুনছো তারা একদিন অনেক বড় হবে, মানুষের মতো মানুষ হবে। আমরা হয় তো সেদিন থাকবো না, তোমরা বড় হও। আর খেলাধুলায় হারজিত থাকবে। যারা হেরেছো তাদেরকে অভিনন্দন আর যারা বিজয়ী হয়েছো তাদেরকেও অভিনন্দন।
খেলায় উপজেলার ছয়টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে। টুর্নামেন্টে পৃথকভাবে সদরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ান হয় ডিকেসিআর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মেয়ে দল। অপরদিকে, বীরগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছেলে দলকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ান হয় কসবা বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়য়, পাগলার ছেলে দল (ছেলে-মেয়ে কম্বাইন স্কুল)। উভয় খেলার চ্যাম্পিয়ান নির্ধারণ হয়েছে ট্রাইবেকারের মাধ্যমে।
পুরষ্কার বিতরণ সভাপতিত্ব করেন শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আনোয়ার উজ্ জামান।
রথপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশীষ কুমার চক্রবর্তীর পরিচালনায় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন শান্তিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজি আবদুল হেকিম, শান্তিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক নূর হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দুলন রানী তালুকদার, সহকারি কমিশনার (ভূমি) ছকিনা আক্তার, শান্তিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খালেদ চৌধুরী, শিক্ষা কর্মকর্তা সেলিম খান, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুল বারেক, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (টিএইচও) মো. জসিম উদ্দিন, পাগলা সরকারি মডেল হাইস্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সৈয়দ রমিজ উদ্দিন, পশ্চিম পাগলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জগলুল হায়দার, সাবেক চেয়ারম্যান নূরুল হক, দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মনির উদ্দিনসহ উপজেলার বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, সহকারি শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে সকাল ১০ টায় শান্তিগঞ্জ উপজেলার ডুংরিয়া হাইস্কুল এন্ড কলেজের অডিটোরিয়ামে ‘বঙ্গবন্ধুর গণমুখী সমবায় ভাবনার আলোকে বঙ্গবন্ধু মডেল গ্রাম প্রতিষ্ঠা’ শীর্ষক পাইলট প্রকল্পের আওতায় বঙ্গবন্ধু মডেল গ্রাম সমবায় সমিতি লিঃ ডুংরিয়ার উপকারভোগীদের মাঝে আবর্তক তহবিল হতে ঋনের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন পরিকল্পনামন্ত্রী।