ইসলামপুরের সড়ক পাকাকরণের দাবি

ইয়াকুব শাহরিয়ার, শান্তিগঞ্জ
শান্তিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের পাগলা বাজারের উত্তর মাথায় মহাসিং নদীর পশ্চিম পাড়ে অবস্থিত ইসলামপুর গ্রাম। দীর্ঘদিন ধরে এ গ্রামের কয়েকশ মানুষ কাদা-পানিতে চলাচল করে আসছেন। গ্রামবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি গ্রামের জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটি যেনো পাকা করে দেওয়া হয়। এ জন্য তাঁরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূরুল হকের কাছে একটি মৌখিক আবেদনও করেছেন। অবশ্য ৭ ফুট চওড়া ও প্রায় ৬শ ফুট দীর্ঘ এ সড়ক সিসি ঢালাইয়ের কাজ টেন্ডার প্রক্রিয়ায় আছে বলে জানিয়েছেন চেয়ারম্যান নূরুল হক।
জানা যায়, আড়াই বছর আগে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও স্থানীয়দের ব্যক্তিগত অর্থায়নে প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকার মাটি ভরাটের কাজ করা হয়েছিলো।
স্থানীয় রাজন হোসেন, নুরুল হক, আবদুল ওয়াহ্হাব, ইমরান হোসেন বলেন, যত দ্রুত সম্ভব আমরা সড়কটি পাকাকরণের দাবি করছি। এর আগে আমরা গ্রামবাসীর উদ্যোগে কিছু কাজ করিয়েছিলাম। পরে মন্ত্রী মহোদয়ের সহায়তায় আরো কিছু মাটি ভরাটের কাজ হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এভাবেই পড়ে আছে। সড়কটি দ্রুত পাকা করা জরুরি।
বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের শান্তিগঞ্জ উপজেলা সভাপতি ও বিশিষ্ট হোমিও চিকিৎসক শাকিল মুরাদ আফজল বলেন, আমরা ইউনিয়নের মধ্যে অন্ধকারে পড়ে আছি। দেখার কেউ নেই। দীর্ঘদিন ধরে আমাদের গ্রামের সড়ক কাদা পানিতে নষ্ট হচ্ছে। আমাদের দাবি সড়ক যেনো দ্রুত পাকা করা হয়।
পশ্চিম পাগলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নুরুল হক বলেন, সড়কটি ইতোমধ্যে পাকাকরণের জন্য ইস্টিমেট গ্রহণ করা হয়েছে। এলজিইডির কার্যালয়ের টেন্ডার প্রক্রিয়াধিন আছে। ৫লক্ষ টাকা ব্যয়ে পাগলা উত্তর বাজার জামে মসজিদ থেকে ৬শ’ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৭ ফুট চওড়া সড়ক নির্মাণ করা হবে। আমি আশাবাদী, আগামী জানুয়ারির মধ্যেই কাজ শুরু হয়ে যাবে।