ইসলামপুর-ধনপুর বাইপাস সড়কের উন্নয়ন নেই

আকরাম উদ্দিন
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের ইসলামপুর-ধনপুর বাইপাস সড়কের সংস্কার কাজ হচ্ছে না দীর্ঘ ২০ বছর ধরে। এই সড়কে রোগীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ চলাচলে মারাত্মক ভোগান্তি বেড়েছে। তাই জরুরিভিত্তিতে সড়কের সংস্কারের দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের।
ইসলামপুর পয়েন্ট থেকে একটি বাইপাস সড়ক ধনপুর সড়কে গিয়ে মিলিত হয়েছে। সড়কটি অতি পুরাতন। দীর্ঘ ২০ বছর আগে এই সড়কের একবার সংস্কার কাজ হয়েছিল। এরপর কোনো সংস্কার কাজ হয়নি। এই কারণে সড়কের বিভিন্ন অংশ ভেঙে পড়েছে। সড়কের বিভিন্ন স্থানে ঢালাই ভেঙে রড বেরিয়ে পড়েছে। ছোট-বড় গর্ত সৃষ্টি হয়েছে একাধিক স্থানে। সড়কের মেঝেতে একাধিক স্থানে বড় আকারের গর্ত থাকায় যানবাহন চলাচল করতে পারে না। খালি পায়ে মানুষ চলাচল করতে পারে না সুঁচালো ভাঙা পাথর থাকায়। এছাড়াও এই সড়কের মেঝেতে রয়েছে দুইটি বক্স কালভার্ট। এই বক্স কালভার্ট গুলোও ভেঙে গেছে বিভিন্ন স্থানে। ইসলামপুর-ধনপুর বাইপাস সড়ক দিয়ে প্রতিদিন নানা ভোগান্তির শিকার হয়ে জরুরি প্রয়োজনে প্লাস্টিকের জুতা পরে শত শত মানুষ যাতায়াত করে থাকেন।
মটরবাইক চালক রিপন বর্মন বলেন, ইসলামপুর-ধনপুর বাইপাস সড়ক মানুষ ও যানবাহন চলাচলের সহজ যোগাযোগ মাধ্যম। এই সড়কে মটরবাইক নিয়েও চলাচল করা যায় না। তাই সড়কের দ্রুত সংস্কার জরুরি প্রয়োজন।
স্থানীয় বাসিন্দা ইসলামপুর গ্রামের আব্দুল্লাহ মিয়া ও আমির উদ্দিন জানান, ইসলামপুর থেকে ধনপুর যাতায়াতের বাইপাস সড়ক এটি। সড়কটি এলাকার মানুষের সহজ যাতায়াত সড়ক। সড়কের সংস্কার কাজের অভাব দীর্ঘদিন ধরে। এই সড়কের যথাযথ উন্নয়ন চান স্থানীয়রা।
ধনপুর গ্রামের বাসিন্দা আল আমিন ও আব্দুল কাদির জানান, ইসলামপুর-ধনপুর যাতায়াতের বাইপাস সড়কটি দিয়ে মানুষ চলাচলের সহজ যোগাযোগ মাধ্যম। অবহেলিত এই সড়কের কোনো উন্নয়ন নেই। আমাদের দাবি এই সড়কের যথাযথ উন্নয়ন।
সিএনজি চালক আসকর আলী ও শাহ আলম জানান, আমরা ইসলামপুর-ধনপুর বাইপাস সড়কে গাড়ি চালাতে পারি না। পুরো সড়কটি ভেঙে গেছে। মানুষ চলাচলও করতে পারেন না। এই সড়কের দ্রুত সংস্কার করে চলাচলের উপযোগি করার আমাদের দাবি।
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী মো. মুখলেছুর রহমান বলেন, করোনাকালীন সময়ে কোনো রাস্তাঘাটের কাজ হচ্ছে না। আমরা উপজেলার অনেকগুলো সড়কের প্রস্তাব পাঠিয়েছি। তম্মধ্যে ইসলামপুর-ধনপুর বাইপাস সড়কেরও প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন হয়ে আসলে সংস্কার কাজ শুরু হবে।