উপসর্গ নিয়ে হাউস অব কমন্সে বক্তব্য বহিস্কার হলেন স্কটিশ এমপি

লন্ডন প্রতিনিধি
নিজ শরীরে করোনার উপসর্গ নিয়ে স্কটল্যান্ড থেকে লন্ডনে এসে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট হাউজ অব কমন্সে করোনা ঠেকানোর বিষয়ে বক্তব্য দিয়ে দল থেকে বরখাস্ত হলেন স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টির (এসএনপি) এমপি মার্গারেট ফ্যারিয়ার। শুধু দল থেকে বহিস্কারই নয়, ইতোমধ্যে পার্লামেন্টেও তার বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তিনি স্কটল্যান্ডের রুথাগ্ল্যাল এবং হ্যামিলটন ওয়েস্টের এমপি মার্গারেট ফ্যারিয়ার এমপিত্বও হারাতে পারেন। তার বিষয়ে তদন্তে নেমেছে পার্লামেন্ট। এমপি মার্গারেটের বিষয়টি এখন পুলিশের হাতে।
গেল সোমবার হাউজ অব কমন্সে করোনা সংক্রমন ঠেকাতে কঠোরতা আরোপের উপর বক্তব্য রাখেন এই এমপি। পরদিন মঙ্গলবার পাবলিক ট্রান্সপোর্টে ব্রিটিশ রেলে ইংল্যান্ড থেকে স্কটল্যান্ড ফিরেন মার্গারেট ফ্যারিয়ার। বুধবার বিকেলে তিনি দলীয় হুইপকে জানান, দু’দিন আগে তিনি করোনা টেষ্ট করেছিলেন রেজাল্ট এসেছে পজিটিভ। বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার সাথে সাথেই তাকে নিজ দল এসএনপি থেকে বহিস্কার করা হয়। হাউস অব কমন্স লিডার ইয়ান ব্ল্যাকফোর্ড জানিয়েছেন, এমপি মার্গারেটকে তাৎক্ষণিকভাবে দল থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। মার্গারেট ফ্যারিয়া পার্লামেন্ট থেকেও সাসপেন্ড হতে পারেন এমনটিই ইঙ্গিত করেছেন আইন বিশেষজ্ঞরা। তবে এই আচরণের জন্যে তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
এদিকে এসএনপি নেত্রী নিকোলা স্টোরজান ক্ষোভ প্রকাশ করে তাকে সাসপেন্ড করার পক্ষে মত দিয়েছেন। যদিও দলের অন্যান্য এমপিরা তাকে দল থেকে বরখাস্ত করার পক্ষে মত দিয়েছেন।
এদিকে ব্রিটিশ সরকার করোনা প্রতিরোধে দেশব্যাপী কঠোরতা আরোপ করেছে। জারি করা হয়েছে নতুন বিধিনিষেধ। সরকারের নতুন আইনে মাস্ক ব্যবহার না করলে বাধ্যতামূলক দুইশ পাউন্ড জমিনানা কোন কোন ক্ষেত্রে দশহাজার পাউন্ড জরিমানার বিধান রয়েছে। নতুন আইন থেকে রেহাই পাননি সাবেক বিরোধী দলীয় নেতা জেরেমি করবিন এবং প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পিতাও।