এক বছরে ৫৮৭ ব্যাগ রক্ত সরবরাহ করেছে বাঁধন

স্টাফ রিপোর্টার
হাওরের জেলা সুনামগঞ্জ। শিক্ষা—দিক্ষা, সচেতনতা সহ সব দিকে পিছিয়ে রয়েছে। হাওরপাড়ের মানুষ খুব একটা সচেতন না হওয়ায় প্রায়ই রক্তের প্রয়োজনে অসহায় হয়ে পড়েন জেলার মানুজন। রক্তের জন্য ছোটাছুটি করতে থাকেন। রক্তদানের ক্ষেত্রেও রয়েছে অসচেতনতা। ভয়ে অনেকেই রক্ত দিতে চান না। এমন অবস্থায় বিগত এক বছরে ৫৮৭ ব্যাগ রক্ত বিনামূল্যে সংগ্রহ করে মুমূর্ষু রোগীর কাছে পৌঁছে দিয়েছে স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন বাঁধন সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজ ইউনিট।
মঙ্গলবার দুপুরে সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অস্থায়ী মিলনায়তন কক্ষে আয়োজিত বার্ষিক সাধারণ সভা ও দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠানে এই তথ্য জানানো হয়। বাঁধন, সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজ ইউনিটের সভাপতি শামিম আহমেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর রজত কান্তি সোম।
অনুষ্ঠানে তথ্য ও শিক্ষা সম্পাদকের প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়— বিগত এক বছরে বিভিন্ন রক্তদাতাদের কাছ থেকে ৫৮৭ ব্যাগ রক্ত সংগ্রহ করা হয়েছে। এরমধ্যে নতুন রক্তদাতা ছিলেন ৯৩ জন। মোট রক্তের চাহিদা ছিলো ৬৩৯ ব্যাগ। এছাড়াও জেলার কয়েক হাজার মানুষকে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় করে দিয়েছে বাঁধন। রক্তের কাজ ছাড়াও করোনা ও বন্যাকালীন সময়ে খাদ্য ও ঘরবাড়ি নির্মাণ সামগ্রী সহায়তার তথ্য উপস্থাপন করা হয়। বার্ষিক সাধারণ সভা শেষে নব নির্বাচিত কার্যকরী কমিটিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান অতিথিরা।
বক্তব্যকালে প্রধান অতিথি প্রফেসর রজত কান্তি সোম বলেন, তারুণ্য এবং তরুণদের দ্বারাই দেশ এগিয়ে যাবে। আমার এতোগুলো সন্তান মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে এটা আমার গর্ব, আমি তাদের শ্রদ্ধা জানাই। এই তারুণ্য শক্তি একদিন দেশের অগ্রভাগের নেতৃত্ব দিবে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক আবুল কাসেম আজাদ, বাংলা বিভাগের প্রধান ড. রোকসানা বেগম, গণিত বিভাগের প্রধান ব্রজেন্দ্র কুমার সিনহা, সহযোগী অধ্যাপক আনসার সহিদ আনসারী, বাঁধন কেন্দ্রীয় পরিষদের সভাপতি মো. নাহিদুজ্জামান সহ অন্যান্যরা।
বার্ষিক সাধারণ সভা ও দায়িত্ব হস্তান্তর শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
উল্লেখ্য, বাঁধন (স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন) শিক্ষার্থীদের দ্বারা পরিচালিত একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভিত্তিক সংগঠন। ঢাকা, রাজশাহী, রংপুর বিশ্ববিদ্যালয় সহ বর্তমানে দেশের ৫৩ জেলার ৭৬ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বাঁধনের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। তার ধারাবাহিকতায় ২০১৭ সাল থেকে সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজে রক্তদান নিয়ে সামাজিক চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট নবনির্বাচিত কার্যকরী পরিষদের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন ফারজানা বেগম, সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক রায়হান মিয়া। এছাড়াও সহ সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম ও সৌরভ বসু, সহ সম্পাদক ফাতেমাতুজ জহুরা, সাংগঠনিক সম্পাদক অর্নব বিশ্বাস জয়, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান রেজা ইফতি, কোষাধ্যক্ষ নাসির উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক তাজকিরা হক তাজিন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হ্যাপি চৌধুরী, তথ্য ও শিক্ষা সম্পাদক সাকিল আহমেদ, সদস্য পাবেল আহমেদ, পপি সেন, নাঈমা সাদিয়া, আজহার হোসেন, বায়োজিদ আল সামায়ুন।