এবারই প্রথম সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদে নারী প্রার্থী

এনামুল হক, ধর্মপাশা
ধর্মপাশা উপজেলায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এবারই প্রথম সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে মাঠে নেমেছেন নাসরিন সুলতানা দিপা নামের এক নারী। যদিও অনেকে আগে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি জানান দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু গত শুক্রবার থেকে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁর ইউনিয়নে গণসংযোগে নেমেছেন। নারী হিসেবে ইউপি নির্বাচনে তাঁর অংশগ্রহণের বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন স্থানীয়রা। নাসরিন সুলতানা দিপা উপজেলার সুখাইড় রাজাপুর উত্তর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে নিরলসভাবে মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন।
নাসরিন সুলতানা দিপা সুনামগঞ্জ জেলা মহিলা লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক। তাঁর বাবা প্রয়াত গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী ও তাঁর নানা প্রয়াত হাজ্বি মনিরুদ্দিন চৌধুরী ছিলেন সুখাইড় রাজাপুর উত্তর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান। জনপ্রতিনিধি হিসেবে পারিবারিক ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে এবং পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার বেড়াজাল ছিন্ন করে নারীর ক্ষমতায়ানকে সুপ্রতিষ্ঠিত করতে স্থানীয় নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মাঠে নেমেছেন তিনি। নির্বাচনকে সামনে রেখে রবিবার বেলা ১১টায় সুখাইড় রাজাপুর উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে প্রার্থী বাছাই উপলক্ষে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে উপস্থিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের মতামতের ভিত্তিতে নাসরিন সুলতানা দিপার নাম প্রস্তাবিত প্রার্থীদের তালিকায় প্রথম হয়।
নাসরিন সুলতানা দিপা বলেন, ‘নারীরা এখন আর কোনো কিছুতে পিছিয়ে নেই। দিনকে দিন নারী নেতৃত্ব বিকশিত হচ্ছে। তাই আমিও নারী হিসেবে জনগণের কল্যাণে কাজ করে যেতে চাই।’
সুখাইড় রাজাপুর সাধারণ সম্পাদক রফিকুল চৌধুরী বাচ্চু বলেন, ‘নারী হিসেবে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর বিষয়টিকে আমরা ইতিবাচকভাবে দেখছি। দিপা পারিবারিকভাবে জনপ্রতিধি পরিবারের সন্তান।’
বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মজিবুর রহমান বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার নারীর নেতৃত্বকে অগ্রাধিকার দিয়েছে। সে হিসেবে নারীরা নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে। নারী হিসেবে ধর্মপাশা উপজেলায় সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে দিপার সাহকিতাকে সাধুবাদ জানাই।’