এমপি রতনের বিরুদ্ধে আবারও জমি দখলের অভিযোগ

সু.খবর ডেস্ক
প্রতারণা করে জমি রেজিস্ট্রি ও জোরপূর্বক অন্যের জমি দখলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের বিরুদ্ধে। সোমবার জাতীয় হিন্দু পরিষদের আয়োজনে এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগীরা। জাতীয় প্রেস ক্লাবের আকরম খাঁ মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন হয়।
এসময় তারা তার বিরুদ্ধে একের পর এক জনগণের জমি দখল করার অভিযোগ করেন। এ নিয়ে প্রতিবাদ করলে তাদের মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি ও প্রাণনাশের হুমকি দেন তিনি। ভুক্তভোগীরা তাদের নিরাপত্তা ও অভিযুক্ত সাংসদের বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
ভুক্তভোগী বিকাশ রঞ্জন সরকার বলেন, সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন প্রতারণা করে আমার দুই একর ৫ শতক জমি রেজিস্ট্রি করে নিয়েছে। যার বর্তমান বাজার মূল্য ২০ লাখ টাকার বেশি। ২০১১ সাল থেকে এই টাকা পরিশোধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েও অদ্যাবধি করেননি। শুধু তাই নয় আমার কাছ থেকে চার শতাংশ জমি ক্রয় করে সেই দাগের ৩৩ শতাংশ জমি জোরপূর্বক জবরদখল করে বাউন্ডারি করে দিয়েছেন। আমার পূর্বের জমির টাকা ও জোরপূর্বক জমি দখল বিষয়ে কথা বলতে গেলে বিভিন্ন সময়ে হুমকি দিচ্ছেন।
বিকাশ আরও বলেন, সর্বশেষ গত ৩ মে আমার পুরনো বাড়ির ৫ শতাংশ জায়গা বিক্রি করে নিজের পুরনো বাড়ি ভাঙতে গেলে সাংসদের বড় ভাই হাজী মোশারফ হোসেন মাসুদ ও তার ছেলে তানভীর হোসেন সাগর আমার ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনার পরের দিন ধর্মপাশা থানা মামলা করলে আমার বিরুদ্ধেও হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করা হয়। শুধু তাই নয়, বিভিন্ন ধরনের সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক গালিগালাজ করার পাশাপাশি বেশি বাড়াবাড়ি করলে সুনই জলমহল এলাকায় খুন হওয়া শ্যামাচরণ বর্মনের মতো অবস্থা করার হুমকি দেয়। এমতাবস্থায় নিজের জমি বেদখল, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিজের নিরাপত্তা চেয়ে সাংসদের উপযুক্ত বিচার দাবি করেন তিনি।
ভুক্তভোগী মো. ইমরান বলেন, ভূমিহীন হিসেবে সরকার থেকে বরাদ্দ পাওয়া ৫৬ শতাংশ জমি জোরপূর্বক জবর দখলের চেষ্টা করছেন মোয়াজ্জেম হোসেন। তার লোকজন ওই জমির গাছ কাটাসহ জলাশয়ে মাছ আহরণ করে নিয়ে যাচ্ছে। এই বিষয়ে প্রতিবাদ করতে গেলে প্রাণনাশের হুমকি শুনতে হচ্ছে। স্কুল করার জন্য জমিটি ছেড়ে দিলে অন্যত্র জমে দেওয়া হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিলেও তা পূরণ করছেন না ওই সংসদ সদস্য। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ন্যায় বিচার প্রার্থনা করেন তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীদের মধ্যে সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা উপজেলার বাসিন্দা কৃষি ব্যাংক সিবিএ সুনামগঞ্জ জেলার আঞ্চলিক সভাপতি বিকাশ রঞ্জন সরকার ও মো. ইমরান উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ হিন্দু আইনজীবী পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুমন কুমার রায়ের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন হিন্দু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাজন কুমার মিশ্র, কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক প্রবাল দেবনাথ অপু, সুনামগঞ্জ জেলার বাংলাদেশ হিন্দু যুব পরিষদের সভাপতি অমর চক্রবর্তী প্রমুখ।
সূত্র : ভোরের কাগজ