খলিশাজুড়ি সড়ক যেন মরন ফাঁদ, দুর্ভোগে পথচারীরা

এম.এ রাজ্জাক, তাহিরপুর
তাহিরপুর সদর থেকে বালিয়াঘাট নতুন বাজার, শ্রীপুর বাজর থেকে বাদাঘাট এবং কাউকান্দি বাজার থেকে তাহিরপুর সদরের একমাত্র সড়কটি এবারের কয়েক দফা বন্যায় বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে গেছে। বিশেষ করে শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের খলিশাজুড়ি গ্রামের সামনের প্রায় ৩শ’ গজ পাকা সড়কের মাটি সরে এক পাশ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। গার্ডওয়াল না থাকায় নীচ থেকে মাটি সরে গিয়ে এমনটি হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। যাতায়াতের জন্য অন্য কোন সড়ক না থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। ফলে যে কোন সময় মারাত্মক দুর্ঘটনার আশংকা রয়েছে।
অপরদিকে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের অভ্যন্তরিন রাস্তাঘাটগুলো দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় নাজুক হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন স্থানে পাকা রাস্তা ভেড়ে, পিচ উঠে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে প্রতিনিয়তই ছোট বড় দুর্ঘটনা ঘটছে।
বালিয়াঘাট নতুন বাজার থেকে শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত রাস্তার ব্লক ও মাটি সরে মরন ফাঁদে পরিণত হয়েছে। গত সোমবার সড়ক দুর্ঘটনায় তাহিরপুর উপজেলা কওমি মাদ্রাসা ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা জমির হোসাইন অকালে মৃত্যুবরণ করেছেন।
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার শ্রীপুর বাজার থেকে বালিয়াঘাট নতুন বাজার এবং নতুন বাজার থেকে বাদাঘাট বাজার ও কাউকান্দি বাজার থেকে তাহিরপুর সদরের রাস্তাগুলোর বিভিন্ন স্থানে ব্লক উঠে, মাটি সরে ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় এলাকার মানুষসহ পথচারীরা চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।
বালিয়াঘাট গ্রামের পথচারী রিপন মিয়া বলেন, গত বছর খলিশাজুড়ি রাস্তাটি পাকাকরণ করা হয়েছে। কিন্তু হাওর সাইটে ব্লক বা গার্ডওয়াল না দেওয়ায় এক বছরের মধ্যেই রাস্তাটি উল্টে গেছে।
শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য শফিকুল ইসলাম বলেন, এবারের বন্যায় খলিশাজুড়ী গ্রামের সামনের পাকা রাস্তাটির নীচের মাটি সরে গিয়ে ধেবে এক সাইট হয়ে গেছে। বিকল্প রাস্তা না থাকায় বিপদ জেনেও এইখান দিয়েই মানুষ চলাচল করছে।
এক স্কুল শিক্ষক জানান, উপজেলার রাস্তাঘাটের উন্নয়ন কাজে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের অনিয়ম-দূর্নীতির কারণে টেকসই উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে তাহিরপুরবাসী।
এছাড়া জনদুভোর্গ লাঘবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও দায়বদ্ধতা এড়াতে পারেন না।
শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খসরুল আলম বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের সীমিত বরাদ্দ দিয়ে এই সড়ক সংস্কার করা সম্ভব না। ছোট খাটো কাজ হলে আমরা ইউনিয়ন পরিষদে বরাদ্দ থেকে সংস্কার বা মেরামত করতে পারি। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বালিয়াঘাট নতুন বাজারের সড়কে কিছু অংশ মাটি দিয়ে মেরামতের কাজ চলছে।
তাহিরপুর উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী ইকবাল হোসেন বলেন, খলিশাজুড়ি সড়ক পরিদর্শন করে উপরে জানিয়েছি। প্রকল্প না থাকায় এখানে আপাতত কাজ করা যাচ্ছে না। বরাদ্দ পেলে সড়কটি দ্রুত মেরামত করা হবে।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল বলেন, এই সড়কটি খুবই জনগুরুত্বপূর্ণ। ইউএনও এবং এলজিইডি অফিসকে বলা হয়েছে সড়কটি দ্রুত মেরামত করে দেয়ার জন্য।