গ্রামীণ পেশা : খলই

গ্রামে গ্রামে ঘুরে খলই (মাছ ধুয়ার ঝুড়ি) বিক্রি করেন গোপাল রুদ্র পাল। বয়স হবে ৫৫ কিংবা ৬০। প্রায় ২ যুগ ধরে এই পেশায় আছেন তিনি। প্রতিদিন যে ক’কটা ঝুড়ি বেত—বাঁশ দিয়ে তৈরি করতে পারেন তা নিয়েই গ্রাম ঘুরতে বের হন তিনি। প্রতিদিন প্রায় ১৫টি খলই বিক্রি করতে পারেন তিনি। যে দিন বাজার ভালো সেদিন ২০টিও বিক্রি হয়। প্রতিটি খলই বিক্রি করেনল ৫০ থেকে ৬০ টাকায়।
গোপাল রুদ্র পাল শান্তিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের শত্রুমর্দন পালপাড়ার বাসিন্দা। আক্ষেপ করে তিনি বলেন, আগের মতো খলই এখন আর বিক্রি হয় না। মানুষ প্লাস্টিকের প্রতি বেশি ঝোঁকে গেছে। বাপ—দাদার শেখানো পেশার মায়া ভুলতে পারিনা বলে অনেক কষ্টে সৃষ্টে এই পেশায় টিকে আছি। রবিবার বিকাল ৪টায় শান্তিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম কান্দিগাঁও থেকে ছবিটি তুলেছেন আমাদের শান্তিগঞ্জ প্রতিনিধি ইয়াকুব শাহরিয়ার।