ঘুর্ণিঝড়ে তছনছ ইনাতনগর উত্তর জামে মসজিদ, সাহায্যের আবেদন

শান্তিগঞ্জ প্রতিনিধি
ঘুর্ণিঝড় তাণ্ডবে গত ১৬ মে প্রথম দফা ও পরের দিন দ্বিতীয় দফা ব্যপক ক্ষতি হয় শান্তিগঞ্জের পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের ইনাতনগর উত্তর জামে মসজিদের। ঘুর্ণিঝড়ে মসজিদের আজান দেওয়ার মাইক, ফ্যান ও সিলিং উড়িয়ে নদীতে ফেলে দেয়। পরে আসে আকস্মিক বন্যা। এতেও তলিয়ে যায় মসজিদটি। সব মিলিয়ে মসজিদকে নিয়ে দিশেহারা মসজিদ পরিচালনা কমিটি ও মসজিদের মুসল্লিরা। তাই মসজিদটিকে পুনঃনির্মাণ ও সংস্কার করতে ইউএনও বরাবরে আবেদনসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন মসজিদের মোতোয়াল্লি, পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও পাড়ার লোকজন।
মসজিদের জন্য সহযোগিতা চেয়ে ২২ মে (রবিবার) শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আনোয়ার উজ্ জামান কাছে একটি আবেদন করেন মসজিদের মোতোয়াল্লি মো. আজিজুল হক ও পরিচালনা কমিটির সভাপতি সৈয়দুর রহমান।
আবেদন পত্রে তারা লিখেন, ১৬ মে (সোমবার) রাতে কালবৈশাখী ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয় ইনাতনগর উত্তর জামে মসজিদ। এসময় মসজিদের আজান দেওয়ার মাইক, ফ্যান, সিলিং উড়িয়ে নিয়ে যায়। কোথায় পড়েছে তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। চালের ও বেড়ার টিন একেবারেই নষ্ট হয়ে যায়। মসজিদটির জন্য ইউএনওসহ সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ মুসলমাদের কাছে আর্থিক সাহায্য কামনা করা করেছেন কমিটির সভাপতি, মোতোয়াল্লি ও এলাকাবাসী।
সোমবার বিকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ইনাতনগর উত্তর জামে মসজিদের বেহাল দশার দৃশ্য। টিনের যে চাল ছিলো তা নেই, বেড়ার টিন তো নেই—ই যে ক’টা এখনো দাঁড়িয়ে আছে তাও ভাঙাচোরা। মাইক বা মাইকের ছাতা নেই, মিম্বর, মিহরাবের অস্তিত্ব নেই। পানিতে ডুবে আছে মসজিদের কিয়দংশ। এজন্য মসজিদটিতে সব ধরণের ইবাদত বন্দেগি বন্ধ রয়েছে।
ইনাতনগর উত্তর জামে মসজিদের সভাপতি সৈয়দুর রহমান ও মোতোয়াল্লি মো. আজিজুল হক বলেন, ইনাতনগর অনেক বড় গ্রাম। উত্তর পাশে টিনের ব্যাটেন দিয়ে একটি মসজিদ আমরা নির্মাণ করেছিলাম। ১৬ তারিখের কালবৈশাখী ঘুর্ণিঝড়ে সবকিছু তছনছ হয়ে গেছে। মসজিদটিকে পুনঃনির্মাণ করতে সরকারি সহযোগিতা, এলাকাবাসী ও সমাজের বিত্তবানদের সব ধরণের সহযোগিতা দরকার। মসজিদটিকে পুনরায় দাঁড় করাতে আমরা সকলের সহযোগিতা চাই।
শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আনোয়ার উজ্ জামান বলেন, এরকম একটা দরখাস্ত আমি পেয়েছি। সরকারের দেওয়া টিন এখনো আমরা পাইনি, পেলে মসজিদ নির্মাণের জন্য কিছু টিন আমরা দেবো।