- সুনামগঞ্জের খবর » আঁধারচেরা আলোর ঝলক - https://sunamganjerkhobor.com -

ছাতকে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

ছাতক প্রতিনিধি
ছাতকে এক গৃহবধূর রহস্যঘেরা মৃত্যু নিয়ে নানা ধুম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। রহস্যজনক এ মৃত্যুকে কেন্দ্র করে গৃহবধূর স্বামী ও পিতার বাড়ির লোকজনের মধ্যে পাওয়া গেছে পরস্পর বিরোধী বক্তব্য। স্বামীর বাড়ির লোকজনের দাবি গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে গৃহবধূ। এদিকে পরিকল্পিত হত্যা বলে দাবি করছে গৃহবধূর পিতার বাড়ির লোকজন।
খবর পেয়ে থানা পুলিশ গৃহবধূ আছলিমা তালুকদারের (১৯) লাশ উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। লাশ উদ্ধারের সময় সুনামগঞ্জের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ছাতক সার্কেল রনজয় চন্দ্র মল্লিক ও এস আই সোহেল রানা সহ ছাতক থানার পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় গোটা এলাকা জুড়ে মৃত্যুরহস্য নিয়ে চলছিল কানা—ঘুষা।
গৃহবধূ আছলিমা তালুকদার ছাতক পৌর সভার ভাজনামহল এলাকার গোলাম কুদ্দুছের পুত্র সাইফুর রহমান সুয়েবের স্ত্রী। জাউয়াবাজার ইউনিয়নের খিদ্রাকাপন গ্রামের মৃত সুরত মিয়া তালুকদারের কন্যা আছলিমা তালুকদারের প্রায় তিন মাস আগে বিয়ে হয় বিমান বাহিনীতে কর্মরত সাইফুর রহমান সুয়েবের সাথে।
পরিবার সূত্রে জানা যায়, বৃহষ্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে বসতঘরের সিলিংফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন আছলিমা তালুকদার। ওই সময় স্বামীর বাড়ির কোন লোকজন ঘরে ছিলো না। খবর পেয়ে একই গ্রামের বাসিন্দা সাইফুর রহমানের মামা আইনুল হক ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নামিয়ে ছাতক হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে কর্তব্যরত চিকিৎসকের পরামর্শে সিলেট রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বিষয়টি আছলিমার মাতা ও বড় বোনকে বিকেলেই মোবাইল ফোনে অবগত করেছেন বলে আইনুল হক জানিয়েছেন।
এদিকে আছলিমা তালুকদারের চাচা রেজা মিয়া তালুকদার গৃহববধূর দেবর আতিকুর রহমান রিয়াদের দিকে ঈঙ্গিত করে জানান, তার ভাতিজিকে স্বামীর বাড়ির লোকজন পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। হত্যাকান্ড ধামাচাপা দিতে স্বামীর বাড়ির লোকজন আছলিমার মৃত্যুর খবরটি পর্যন্ত তাদেরকে জানায়নি। রাত প্রায় সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকায় বসবাসরত তার অন্য এক ভাতিজির মাধ্যমে এ খবর পেয়েছেন তারা। এ বিষয়ে তারা থানায় মামলা দায়েরর প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর রশিদ আহমেদ খছরু জানান, বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তিনি গৃহবধূর আত্মহত্যার খবর পেয়ে তাদের বাড়িতে আসেন। এ সময় তারা রোগী নিয়ে হাসপাতালে ছিলো। সন্ধ্যায় লাশ নিয়ে আসা হলে পুলিশ সুরতহাল রিপোর্ট করে মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় থানায় এ পর্যন্ত কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি পুলিশ জানিয়েছে।
এদিকে খবর পেয়ে রাতে বাড়ি ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়েন গৃহবধূর স্বামী সাইফুর রহমান সুয়েব। বর্তমানে তিনি ছাতক হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন বলে তার পরিবার সূত্রে জানা গেছে।
ছাতক থানার এসআই মাসুদ রানা জানান, ময়না তদন্তের রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না।

  • [১]