ছাতকে রেলওয়ে বিভাগে দুর্নীতির তদন্তে উপ সচিব

ছাতক প্রতিনিধি
ছাতকে রেলওয়ে বিভাগের নির্বাহী প্রকেীশলীর দপ্তরে অনিয়ম-দুর্নীতির তদন্ত শুরু করেছেন তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি। রেল মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব (প্রশাসন ৪) মীর আলমগীর হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত টিম বৃহস্পতিবার সরজমিনে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেন।
সম্প্রতি ছাতক থেকে রেলওয়ে শাখার নির্বাহী প্রকৌশলী কার্যালয়ের কর্মরত প্রধান সহকারীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে রেলওয়ে সিআরবি পূর্বাঞ্চাল চট্রগ্রাম বলাবরে দেয়া একটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়। তদন্ত টিমের অপর দুই জন হলেন, ঢাকা রেল ভবনের পরিচালক (পরিবহন) শেফিকুর রহমান ও উপ পরিচালক (ভূ-সম্পত্তি) আবিদুর রহমান।
অভিযোগে বলা হয়, ছাতক রেলওয়ের নির্বাহী প্রকেীশলী দপ্তরের প্রধান সহকারী সুরঞ্জন পুরকাস্থের সহযোগিতায় দপ্তরে ১০টি মঞ্জুরীকৃত খালাসী পদে লোকবল থাকার পরও তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত উর্ধতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী আব্দুল নুরের পুত্র ভারপ্রাপ্ত মোটর ড্রাইভার মাহবুবুর আলম ও কন্যা খালাসী সূর্বনা আক্তারকে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয়া হয়। তারা ওই পদের বিপরীতে কোন কাজ না করলেও তাদের নিয়মিত বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়।
এছাড়াও সুরঞ্জন পুরকাস্থ, আব্দুল নুরের যোগসাজসে রেলওয়ের কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ কোয়ারীর বালু-পাথর বিক্রি, রেলওয়ে বাসা-বাড়ি ও সুরমা নদীর তীর সংলগ্ন রেলওয়ের ভূমি ডাম্পিং সাইড হিসেবে ভাড়া দিয়ে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।
তদন্ত কমিটির প্রধান উপ-সচিব মীর আলমগীর হোসেন স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত কাজ চলছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।