জগন্নাথপুরে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

জগন্নাথপুর অফিস
জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের হাড়গ্রামের নরেশ দাসের কলেজ পড়–য়া মেয়ে সুমা দাস (১৮) গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার সকালে এই ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠিয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের হাড়গ্রামের নরেশ দাসের কলেজ পড়য়া মেয়ে সুমা দাস (১৮) পরিবারের লোকজনের অগোচরে শুক্রবার সকালে ঘরের একটি কক্ষের তীরের সঙ্গে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে। সকাল ৯টার দিকে এক নারী জালালা দিয়ে মেয়েটি ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে চিৎকার দিলে লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। বিষয়টি জগন্নাথপুর থানা পুলিশকে অবহিত করা হলে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করা।
সুমার বাবা নরেশ দাস বলেন, মেয়েটি লেখাপড়ায় খুবই ভালো ছিল। তার স্বপ্ন ছিলে পুলিশে চাকুরি করার, সে লক্ষ্যে পড়াশুনা করছিল। মাঝে মধ্যে আমার মেয়ের মাথায় কিছুটা সমস্যা হতো। তিনি জানান, সকালে কাজের সন্ধানে বাড়ি থেকে বের হই। পরে শুনি মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে।
ঘটনাস্থল পরির্দশনকারী জগন্নাথপুর থানার উপপরির্দশক (এসআই) শামিম আহমেদ বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। মেয়েটি ইনাতগঞ্জ কলেজের একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছিল। তবে প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার কারণ জানা যায়নি।