জগন্নাথপুরে দলিল লিখক সমিতির কর্মবিরতি

জগন্নাথপুর অফিস
জগন্নাথপুর উপজেলা সাব—রেজিষ্টারের বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে হয়রানিমূলক আচরণের অভিযোগ এনে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালন করেছে জগন্নাথপুরের দলিল লিখক সমিতি। সোমবার থেকে এ কর্মসুচি শুরু হয়েছে। এতে করে দলিল সম্পাদন না হওয়াতে লোকজন ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। সরকার বঞ্চিত হচ্ছে রাজস্ব থেকে।
জানা যায়, গত ২৭ সেপ্টেম্বর উপজেলা সাব রেজিষ্টার মো. আব্দুর রাজ্জাক হাসান উপজেলা দলিল লিখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাসির আলীকে অন্যায়ভাবে হয়রানিমূলক বহিস্কারাদেশ প্রদান করে ৭ দিনের মধ্যে কারণ দর্শার নোটিশ প্রদান করেন এবং দলিল সম্পাদন না করতে নির্দেশ প্রদান করেন। এঘটনার প্রেক্ষিতে দলিল লিখক সর্বসম্মতিক্রমে কর্মবিরতি পালনের ডাক দেয়।
উপজেলা দলিল লিখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাসির আলী জানান, দীর্ঘ ১২ বছর ধরে সুনামের সঙ্গে আমার উপর অর্জিত দায়িত্ব পালন করে আসছি। গত ২৭ সেপ্টেম্বর একটি সাফ কবলা দলিল সম্পাদনের জন্য প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র দাখিল না থাকায় সম্পাদনে অস্বীকৃতি জানাই। উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে আমার বিরুদ্ধে অযথা কারণ দশার্নোর নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।
জগন্নাথপুর উপজেলা দলিল লিখক সমিতির সভাপতি বশির আহমদ জানান, সুনিদিষ্ট কোন কারণ ছাড়াই হয়রানিমূলকভাবে আমাদের সমিতির সম্পাদককে বহিস্কারাদেশ প্রদান করায় আমরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালন করছি।
জগন্নাথপুর উপজেলা সাব—রেজিষ্টার মো. আব্দুর রাজ্জাক হাসান জানান, শৃঙ্খলা বহিভূর্ত আচারণের দায়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয়েছে। বহিস্কার করা হয়নি। গতকাল লিখিত জবাব পেয়েছি। কর্মবিরতির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, একজনের কারণে অন্যদের কর্মসূচি পালন ঠিক হয়নি।