জাতির পিতার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

স্টাফ রিপোর্টার
বিনম্র শ্রদ্ধায় শোক ও ভালোবাসায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদত বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস যথাযথ মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে রবিবার সকাল সাড়ে ৯টায় সুনামগঞ্জ ঐতিহ্য জাদুঘর প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণের মাধ্যমে স্বাধীনতার মহান স্থপতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। এছাড়াও সকাল ১০টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে স্থাপিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন তিনি। এসময় পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান বিপিএম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম. এনমুল কবির ইমন, সুনামগঞ্জ স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক মোহাম্মদ জাকির হোসেন, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত, বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, জেলার সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমনের নেতৃত্বে জেলা আওয়ামী লীগ জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এসময় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিনের নেতৃত্বে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. আশরাফুল হক, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সৌমিত্র চক্রবর্তী সহ সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুল হুদা মুকুট’র পক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাকির হোসেন। এসময় জেলা পরিষদ সদস্য এবং জেলা পরিষদের সকল কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়াও একে একে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতি, জেলা পুলিশ, জেলা ছাত্রলীগ, সুনামগঞ্জ পৌরসভা, সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাব, সুনামগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটি, ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর জেলা কার্যালয়, জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তর, জেলা কৃষক লীগ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ, জেলা শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ, জেলা আওয়ামী ছাত্র পরিষদ, জেলা মৎস্যজীবী লীগ, জেলা যুব মহিলা লীগ, বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড সুনামগঞ্জ, জেলা প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্র, সুনামগঞ্জ এলজিইডি, সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্টি, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন সুনামগঞ্জ জেলা শাখা, সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, সদর উপজেলা কৃষকলীগ, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা জগৎজ্যোতি পাবলিক লাইব্রেরী, জেলা সমবায় কার্যালয়, বিয়াম ল্যাবরেটরী স্কুল, জেলা ক্রীড়া সংস্থা, সুনামগঞ্জ শিশু একাডেমি সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। দিবস উপলক্ষে সুনামগঞ্জ কালেক্টরেট চত্ত্বরে বৃক্ষরোপন করেন জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে ভার্চুয়ালি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে ভার্চ্যুয়াল শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আজিজুস সামাদ ডন। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমন’র সঞ্চালনায় সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও সুনামগঞ্জ ৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক এমপি। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ ১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি, সুনামগঞ্জ ২ আসনের সংসদ সদস্য ড. জয়া সেনগুপ্তা এমপি ও সিলেট-সুনামগঞ্জ সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য অ্যাড. শামীমা শাহরিয়ার এমপি। এছাড়াও জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বাদ জোহর সুনামগঞ্জ কেন্দ্রীয় মসজিদে দোয়া মাহফিল, দুপুর ২টায় জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বিশ্বম্ভরপুরে দুঃস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ, সন্ধ্যা ৭ টায় সুনামগঞ্জ জগন্নাথ মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়।
এদিকে জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুল হুদা মুকুট’র সভাপতিত্বে ভার্চ্যুয়াল শোকসভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান। সভায় জেলা আওয়ামী লীগ ও বিভিন্ন উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ যুক্ত ছিলেন।
দিবস উপলক্ষে সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের আয়োজনে ভার্চুয়ালি আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি নূরুল হুদা মুকুট। জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে পৌর শহরের উকিলপাড়া পয়েন্টে নিঃস্ব ও অসহায়দের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ে দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল. কবিতা আবৃত্তি, হামদ নাত, রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
বেলা সাড়ে ১১টায় বাংলাদেশ শিশু একাডেমি সুনামগঞ্জের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে অনলাইনে শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজিত চিত্রাংকন ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়। দুপুর সাড়ে ১২টায় করোনা ভাইরাস সংকট মোকাবেলায় কর্পোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতা কার্যক্রমের আওতায় দেশব্যাপী সোনালী ব্যাংক লিমিটেড এর বিশেষ সিএসআর কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সোনালী ব্যাংক লিমিটেড সুনামগঞ্জ শাখা হতে অসহায়, দুঃস্ত সুবিধাভোগীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়। এসময় ৮৮ জন সুবিধাভোগীর মধ্যে এক লক্ষ ছিয়াত্তর হাজার টাকা বিতরণ করা হয়।
সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত পূর্বক স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে জেলার সকল মসজিদসমূহে বাদ যোহর বিশেষ মোনাজাত এবং মন্দির, গির্জা, প্যাগোডা ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। দিবস উপলক্ষে জেলা সদর হাসপাতালের আয়োজনে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা (উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস রোগীর স্ক্রিনিং), জেলা সদর হাসপাতালের কনফারেন্স হলে দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় এবং হাসপাতালের রোগীদের মধ্যে উন্নত খাবার পরিবেশন করা হয়। জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে কেন্দ্রীয় কালীবাড়ী নাট মন্দিরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও সকল শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও জেলার মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় বিভিন্ন মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামিক ফাউন্ডেশন সুনামগঞ্জ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার আয়োজনে সুনামগঞ্জ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে কোরআন খতম এবং বাদ যোহর বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও উপজেলা পর্যায়েও আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এদিকে দিবস উপলক্ষে গরীব ও দুঃস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে সুনামগঞ্জ ব্যাটালিয়ন (২৮ বিজিবি)। এসময় উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ ব্যাটালিয়ন (২৮ বিজিবি) অধিনায়ক (পরিচালক) লে. কর্নেল তসলিম এহসান পিএসসি, মেডিকেল অফিসার ক্যাপ্টেন মো. নাজমুল হাসান এএমসি, সহকারী পরিচালক (কোয়ার্টার মাস্টার) মো. আব্দুর রাজ্জাক মন্ডল, সুবেদার মেজর মো. লিয়াকত আলী, নায়েব সুবেদার মো. আব্দুর রাজ্জাক সরকার, হাবিলদার (জিপি এনসিও) মো. সোহেল মিয়া, হাবিলদার সহকারী (ভারপ্রাপ্ত প্রধান সহকারী) মো. আব্দুল হাই সরকার।
উল্লেখ্য, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির ইতিহাসের সবচেয়ে কালিমাময় দিন। রক্তঝরা এই দিনে জাতি হারিয়েছে তার গর্ব, ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রে সেদিন ধানমন্ডির ঐতিহাসিক ৩২ নম্বরে নিজ বাসভবনে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে তার পরিবার-পরিজনকেও নৃশংস হত্যাকা-ের শিকার হতে হয়েছিল। কতিপয় বিশ্বাসঘাতক রাজনীতিকের চক্রান্তে এবং সেনাবাহিনীর একদল বিপথগামী উচ্চাভিলাষী সদস্যের বুলেটের আঘাতে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সেদিন শাহাদাতবরণ করেন তার প্রিয় সহধর্মিণী বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিব, তিন ছেলে মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামাল, সেনা কর্মকর্তা শেখ জামাল ও ১০ বছরের শিশু শেখ রাসেল এবং নবপরিণীতা দুই পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজী জামাল। প্রবাসে থাকায় জীবন রক্ষা পায় বঙ্গবন্ধুর দুই মেয়ে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানার।