জামালগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ রোধ

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি
জামালগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে একটি বাল্যবিবাহ রোধ করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ফেনারবাঁক ইউনিয়নের গজারিয়া গ্রামে কিশোরীর নিজ বাড়িতে বিয়ে সম্পন্নের চেষ্টা করলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত দেবের নির্দেশে ইউপি সচিব অজিত রায়, ফেনারবাঁক ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান আসাদ মিয়া ও স্থানীয় ইউপি সদস্য আলী আহমদ কনের বাড়িতে গিয়ে এই বিয়ে ভেঙ্গে দেন।
জানা যায়, গজারিয়া গ্রামের এক কিশোরীর সাথে একই গ্রামের এক ছেলের সাথে বিয়ে ঠিক করে দুই পরিবার। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মেয়েটি অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার বিষয়টি অবহিত হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত দেব। পরবর্তীতে তিনি ফেনারবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু তালুকদারকে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন। পরে চেয়ারম্যানের নির্দেশে ইউপি সচিব ও ইউপি সদস্যগণ ঘটনাস্থলে গিয়ে বল্যবিবাহ রোধ করেন এবং অভিভাবক ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে বিয়ে দেবেন না বলে মুচলেকায় স্বাক্ষর করেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত দেব বলেন, বাল্য বিবাহ একটি সামাজিক ব্যাধি। রাষ্ট্রে এ ধরনের বিয়ের কোন স্বীকৃতি নেই। সকলের সহযোগিতায় কিশোরী মেয়েটির বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে।