জামালগঞ্জে বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি
বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেলো ১৫ বছরের এক কিশোরী। গত শুক্রবার জামালগঞ্জ সদর ইউনিয়নের কাশীপুর (ইউসুফনগর) গ্রামে জন্মসনদ ব্যতিত ঐ কিশোরীর বিয়ের আয়োজন চলছিলো। গোপন সংবাদের মাধ্যমে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ^জিত দেব তাৎক্ষণিক ইউপি সচিব, ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।
জানা যায়, কাশীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কিশোরটির বয়স ১৯ বছর ১৭দিন উল্লেখ করে একটি প্রত্যয়ন পত্র দেন। তবে যাচাই বাছাই করে প্রত্যয়ন পত্রের কোন সত্যতা পাওয়া যায় নি। কিশোরী আলা উদ্দিন মেমোরিয়েল উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০২০ সালে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি হয়েছিল। সে অনুযায়ী তার বয়স হয় ১৪ বছর।
এব্যাপারে ফেনারবাঁক ইউপি সচিব অজিত কুমার রায় বলেন, সাবেক জেলা প্রশাসক রফিকুল ইসলাম স্যার সুনামগঞ্জ জেলাকে ২০১৬ সালে বাল্য বিবাহ মুক্ত ঘোষণা করেন। এর পরও বাল্য বিবাহ সংঘটিত হওয়া আমাদের জন্য লজ্জাজনক।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ^জিত দেব বলেন, বাল্যবিবাহের ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনে কঠোর অবস্থান বজায় থাকবে। যে বা যারা জড়িত থাকুন না কেন তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলমান আছে।