জোর করে ৫ যুবকের চুল ও দাড়ি কাটায় গ্রেপ্তার ৩

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি
জগন্নাথপুরে ফ্যাশন করে মাথায় লম্বা চুল ও দাড়ি রাখায় ৫ যুবকের চুল ও দাড়ি কেটে দেয়ার অভিযোগে পুলিশ তিনকে আটক করেছে। শনিবার বিকেলে তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
আটকৃকৃত হলেন পাটলী ইউনিয়নের গোয়ালকুড়ি মৃত ছুরত মিয়ার ছেলে স্যামল মিয়া (৪০), পাটলী গ্রামের মৃত চমক আলীর ছেলে আনর মিয়া (৪৬) ও মইজপুর গ্রামের মৃত খুরশেদ মিয়ার ছেলে সিরাজ মিয়া (৪৫)।
পুলিশ ও এলাকাবাসি জানান, উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের সমসপুর গ্রামের পরিমল শব্দ করের বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তার ভাতিজা ভূবেশ কর, সুবেন্দ্র কর, সুবাস কর, নয়ন কর ও ভাই হৃদয় কর, প্রতিবেশী তরুণ আনসার সদস্য লিপন দাস রসুলগঞ্জ বাজারের লোকনাথ হেয়ার ড্রেসারে চুল ও দাড়ি কাটছিল। শুক্রবার সন্ধ্যাা সময় সেলুনে আসা মইজপুর গ্রামের সিরাজ মিয়া, লোহারগাঁও গ্রামের ফুল মিয়া, পাটলী চক গ্রামের আনর মিয়া গংরা তাদের কে স্টাইল করে চুল কাটা এবং দাড়ি রাখায় বিদ্রুপ ও কটুক্তি করে। এনিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ওই ৫ যুবকের মাথা ন্যাড়া করে দাড়ি ফেলে দেয়া হয়। বিষয়টি নির্যাতিত এক যুবক রাতে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে অভিযোগ করলে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ রাতে অভিযান চালিয়ে তিনজনকে আটক করে।
ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী জগন্নাথপুর থানার উপপরিদর্শক মির্জা সাখাওয়াত বলেন, ৫ তরুণের চুল ও দাড়ি জোরপূর্বক কাটায় অভিযোগে তিনজনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় জগন্নাথপুর থানায় শনিবার অভিযুক্ত সাত জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।